এশিয়া

সু চিকে আরও তিন বছরের কারাদণ্ড

নেপিডো, ২৯ সেপ্টেম্বর – মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সুচিকে বৃহস্পতিবার দেশের সরকারী গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের জন্য দোষী সাব্যস্ত করে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে একটি গোপন সামরিক আদালত। যা গত বছর অভ্যুত্থানে তাকে পদ থেকে অপসারণের পর জান্তার আনীত অভিযোগের দোষী সাব্যস্ততার সর্বশেষ ঘটনা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সুচির সঙ্গে তার অর্থনৈতিক উপদেষ্টা শন টার্নেলকেও দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে এবং তাকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারীতে অভ্যুত্থানের পাঁচ দিন পরে অস্ট্রেলিয়ার সিডনির ম্যাককুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাবিদ টার্নেলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তবে অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাসকে তার বিচারে অংশ নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়নি এবং বিচারের সময় তাকে অনুবাদক থেকে বঞ্চিত করা হয়েছিল।

রয়টার্স নিউজ এজেন্সিকে এই কার্যক্রমের সাথে পরিচিত একটি সূত্র জানিয়েছে, তাদের অভিযুক্ত অপরাধের সঠিক বিবরণ প্রকাশ করা হয়নি, যদিও রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন গত বছর বলেছিল যে টার্নেলের ‘গোপন রাষ্ট্রীয় আর্থিক তথ্য’ অ্যাক্সেস ছিল এবং তিনি দেশ ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন। তার অর্থনৈতিক দলের অন্য সদস্যদেরও মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে।

এদিকে, টার্নেল এবং অং সান সুচি, দুজনেই আগস্টে সাক্ষ্য দেয়ার সময় মামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন।

অং সান সুচিকে ইতিমধ্যেই অন্যান্য মামলায় ২০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে যেগুলির উদ্দেশ্য ছিল তাকে ক্ষমতায় ফিরে আসতে বাধা দেয়া।

উল্লেখ্য, নির্বাচিত সরকারকে পতনের পর থেকে সামরিক বাহিনী তার শাসনের সমস্ত বিরোধিতার বিরুদ্ধে দমন করেছে, কিন্তু উল্লেখযোগ্য প্রতিরোধের সম্মুখীন হচ্ছে। সামরিক বাহিনীর দমন পীড়নে ২৪০০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে এবং সাড়ে ১২ হাজারেরও বেশি মানুষকে আটক করা হয়েছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button