মধ্যপ্রাচ্য

প্রিন্স সালমানের ‘প্রধানমন্ত্রী’ হওয়ার কারণ ‘সাধারণ নয়’

রিয়াদ, ২৮ সেপ্টেম্বর – সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বানানো হয়েছে। মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদে রদবদল করা হয়। সেখানেই প্রধানমন্ত্রিত্ব পান সালমান।

সৌদি আরবের প্রধানমন্ত্রীর পদটি মূলত থাকে বাদশাহর হাতে। কিন্তু বাদশাহ সালমান তার ছেলেকে প্রধানমন্ত্রীর পদ দিয়েছেন।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক গণমাধ্যম মিডেল ইস্ট আই জানিয়েছে, প্রিন্স সালমান ‘প্রধানমন্ত্রী পদ’ নিয়েছেন ‘বিচারের মুখোমুখি’ হওয়া থেকে বাঁচতে।

সাংবাদিক জামাল খাগোসিকে হত্যা করার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে হওয়া মামলা থেকে বাঁচতে এই কাজ করেছেন প্রিন্স সালমান।

বাইডেন প্রশাসন এখন চিন্তা-ভাবনা করছে জামাল খাসোগি হত্যার চূড়ান্ত মামলা থেকে প্রিন্স সালমানকে রেহাই দেওয়া হবে কিনা। তার আগেই নিজেকে বাঁচাতে সৌদি আরবের প্রধানমন্ত্রীর পদ নিয়ে নিয়েছেন প্রিন্স সালমান।

জামাল খাগোসির প্রতিষ্ঠিত সংস্থা ডন প্রিন্স সালমানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে এ হত্যার অভিযোগ দায়ের করে।

ডনের প্রধান নির্বাহী সারাহ লিহ হুইটসন টুইটে লিখেছেন, একটি কারণ, শুধু একটি কারণ, প্রিন্স সালমান অন্যন্য পদবীর সঙ্গে এখন তার নামের পাশে প্রধানমন্ত্রী পদ যোগ করেছেন, আমরা তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছি সেটি থেকে রেহাই পেতে।

২০১৮ সালের ২ অক্টোবর তুরস্কে সৌদি দূতাবাসের ভেতর নির্মমভাবে হত্যা করা হয় জামাল খাসোগিকে। এরপর এসিডের মাধ্যমে তার মরদেহ গলিয়ে ফেলা হয়।

তুরস্কের গোয়েন্দা ও যুক্তরাষ্ট্রের সিআইএ দুটি সংস্থাই জানিয়েছিল, জামাল খাসোগিকে হত্যা করতে সরাসরি নির্দেশ দিয়েছেন প্রিন্স সালমান।

জামাল খাসোগির বাগদত্তা হাতিস চেঙ্গিজ বলেছেন, প্রিন্স সালমান তার নামের পাশে প্রধানমন্ত্রী পদ যোগ করলেও তার বিরুদ্ধে আইনগত পক্রিয়া অব্যাহত রাখতে হবে এবং তাকে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button