বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

নারীদের সুরক্ষায় ইনস্টাগ্রামে বিশেষ ফিচার

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ইনস্টাগ্রাম। বন্ধু তৈরিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলো। তবে অপরিচিত ব্যক্তিকে বন্ধু বানিয়ে অনেকেই পড়েন বিপদে। বিশেষ করে নারীরা, প্রায়ই সাইবার ফ্ল্যাশিংয়ের শিকার হন। যা অনেক সময় অন্যদের সাথে শেয়ারও করতে পারেন না।

সাইবার ফ্ল্যাশিং হচ্ছে অনুমতি ছাড়াই ইনস্টাগ্রামে মেসেজে পর্নগ্রাফি বা নগ্ন ছবি পাঠানোকে বোঝায়। নারীদের এসব ছবি বা ভিডিও পাঠিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলেন সাইবার অপরাধীরা। সামাজিকতা রক্ষায় পুলিশের শরণাপন্নও হন না অনেক নারী। এবার এই সমস্যা সমাধানে বিশেষ পদক্ষেপ নিচ্ছে ইনস্টাগ্রাম।

ইনস্টাগ্রামে এখন থেকে আর অশ্লীল ছবি বা ভিডিও পাঠালেও তা ওপেন হবে না। ফলে সাইবারফ্ল্যাশিং থেকে মুক্তি থাকবেন ব্যবহারকারীরা। এই ফিচারটি ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা দেবে বলেই মনে করা হচ্ছে। তবে বর্তমানে এই ফিচারটির কাজ চলছে।

সম্প্রতি টুইটারে একটি স্ক্রিনশট শেয়ার করেছেন মেটা। সেখানে তিনি বলেন, চ্যাটে নগ্নতা প্রতিরোধের কাজ চালাচ্ছে ইনস্টাগ্রাম। চ্যাটে নগ্ন ছবি ভিডিও থাকলে তা টেকনলজির মাধ্যমে ঢেকে দেওয়া হবে। অর্থাৎ ছবিগুলো ব্লার অবস্থায় দেখাবে। ওই ছবি অ্যাক্সেসের অনুমতিও মিলবে না।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এই ফিচার ব্যবহারকারীদের বিশেষ করে নারীদের সুরক্ষায় বেশি কাজে আসবে। যদিও এটির কাজ এখনো প্রাথমিক স্তরেই আছে। ধারণা করা হচ্ছে, খুব শিগগির এই ফিচার ব্যবহারের সুযোগ পাবেন সবাই।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সাইবার ফ্ল্যাশিংয়ের জন্য আইন রয়েছে। যুক্তরাজ্যের আসন্ন অনলাইন নিরাপত্তা বিলে সাইবার ফ্ল্যাশিংকে একটি অপরাধ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। গত মাসে ক্যালিফোর্নিয়ায় এটির জন্য একটি আইন পাস করেছে সেদেশের সরকার। এছাড়াও ২০১৯ সালে টেক্সাসসে সাইবার ফ্ল্যাশিংয়ের উপর একটি আইন পাস করেছে। সেখানে এটি অপরাধ বলেই ধরে নেওয়া হয় এবং অপরাধীকে শনাক্ত করার পর জরিমানা করা হয় ৫০০ মার্কিন ডলার পর্যন্ত।

আইএ/ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button