এশিয়া

কড়া নিরাপত্তায় আজ শিনজো আবেকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা জানাচ্ছে জাপান

টোকিও, ২৭ সেপ্টেম্বর – কড়া নিরাপত্তায় আজ ২৭ সেপ্টেম্বর জনপ্রিয় ও প্রয়াত সাবেক প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবেকে রাষ্ট্রীয় সম্মননা জানাচ্ছে জাপান। আবের রাষ্ট্রীয় এই অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে এরই মধ্যে দেশটিতে পৌঁছেছেন সাত শতাধিক বিশ্ব নেতা। তাদের মধ্যে কমপক্ষে ৫০ জন বর্তমান ক্ষমতাসীন অথবা সাবেক রাষ্ট্রনেতা রয়েছেন।

বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্থনি অ্যালবানিজ, ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট গুয়েন জুয়ান ফুক, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী হ্যান ডাক-সু, ফিলিপাইনের ভাইস প্রেসিডেন্ট সারা দুতের্তে-কার্পিও, ইন্দোনেশিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট মারুফ আমিন এবং ইউরোপিয়ান কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল।

গত ৮ জুলাই জাপানের নারা শহরে এক নির্বাচনী সভায় বক্তব্য রাখার সময় তাকে খুব কাছ থেকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এরপর আজ মঙ্গলবার রাজধানী টোকিওতে তার রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে জাপানের সাবেক একজন প্রধানমন্ত্রীর এটাই হচ্ছে দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া। এ উপলক্ষে জাপানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর করা হয়েছে। ট্রেন স্টেশনগুলোতে নামানো হয়েছে ডগ স্নাইপার। রাজধানী টোকিওর বিমানবন্দরে পুলিশি প্রহরা রয়েছে। জনসাধারণ যাতে এ অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধা জানাতে পারেন, সেজন্য দুটি ফুলের নৈবেদ্য সাজানো হবে।

তবে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় শ্রদ্ধা জানাতে বাজানো হবে জাপানের জাতীয় সঙ্গীত। শিনজো আবের প্রতি সম্মান জানাতে পালন করা হবে নীরবতা। উদ্বোধনী ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদার।

এদিন প্রয়াত এই প্রধানমন্ত্রীর প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর কথা রাজ পরিবারের। শিনজো আবের দেহাবশেষকে বিদায় জানানোর মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হবে। তার স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে।

গত ৮ জুলাই ৪১ বছর বয়সী তেতসুইয়া ইয়ামাগামি খুব কাছ থেকে গুলি করে হত্যা করেন শিনজো আবে’কে। দুটি গুলি তার গলার ভিতর দিয়ে বিদ্ধ হয়। হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, জাপানের সবচেয়ে বেশি সময় ক্ষমতায় থাকা প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। ২০২০ সালে স্বাস্থ্যগত কারণে তিনি পদত্যাগ করেন। দু’বার তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। প্রথম দফায় তিনি ২০০৬ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত এবং দ্বিতীয় দফায় ২০১২ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলেন।

সূত্র: বিডি প্রতিদিন
আইএ/ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button