পশ্চিমবঙ্গ

শহরের একটি রাস্তার নাম প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের নামে করার নির্দেশ দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতা, ২৬ সেপ্টেম্বর – ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির নামে রাস্তা এবং পার্ক তৈরির নির্দেশ দিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। রাজ্যটির নগরোন্নয়ন, পৌর বিষয়ক ও আবাসন মন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে এই নির্দেশ দেন মমতা। রবিবার মহালয়ার দিন সন্ধ্যায় কলকাতার দক্ষিণ কলকাতার চেতলা অগ্রণীর পূজার উদ্বোধনে এসে সদ্য প্রয়াত বিশিষ্ট ব্যক্তিদের স্মরণ করে এই নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমি আজ শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি আমার প্রিয় সংগীতশিল্পী সন্ধ্যা মুখার্জীকে, যিনি প্রতি মহালয়াতে জাগো বাংলার অনুষ্ঠানে আসতেন। কিন্তু আজ তিনি আসতে পারলেন না। দ্বিজেন মুখোপাধ্যায় (সংগীতশিল্পী) যতদিন বেঁচে ছিলেন, আসতেন। আমি তাদের স্মরণ করছি। আমি স্মরণ করছি নির্মলা মিশ্রকে (সংগীতশিল্পী), এই পাড়ায় তিনি থাকতেন। আমার কাছে প্রায়ই ছুটে যেতেন, দীর্ঘদিন ধরে তিনি শয্যাশায়ী ছিলেন। তার কত স্মৃতি মনে পড়ে। আমরা যেন নির্মলাদির নামে নিশ্চয়ই কিছু করি। যেমন আমরা একডালিয়া এভারগ্রীন ক্লাবের সামনে সুব্রত মুখার্জির (রাজ্যের সাবেক পঞ্চায়েত মন্ত্রী) নামে স্ট্যাচু করছি। লেক গার্ডেন্সের বাঙ্গুর পার্ক নামকরণ করা হবে সন্ধ্যা মুখার্জির নামে। সেইরকমই নির্মলা দির নামেও এই এলাকায় একটা কিছু করার জন্য বলবো।

এসময়ই তিনি বলেন, ববিকে (ফিরহাদ হাকিমের ডাকনাম) আমি বলব ছোট হলেও হবে, একটা রাস্তা এবং একটা ছোট্ট পার্ক প্রণব মুখার্জির নামে নামাঙ্কিত করে দেওয়ার জন্য।
প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি সঙ্গে মমতার সম্পর্ক নানা ওঠাপড়ার মধ্যে দিয়ে গিয়েছে। তারা দুজনেই যখন কংগ্রেসে ছিলেন একাধিক বিষয়ে তাদের মধ্যে মতবিরোধও হয়েছিল। নিজের আত্মজীবনী ‘দ্য কোয়ালিশান ইয়ার্স’ তে সেসব কথা উল্লেখও করেছিলেন প্রণব। তবে মমতার ব্যক্তিত্ব এমনই যে তা ভাষায় ব্যাখ্যা করা অথবা উপেক্ষা করা দুটোই অসম্ভব বলেও মন্তব্য করেছিলেন প্রণব। পরবর্তীতে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল দল গঠনের পর রাজনৈতিক ক্ষেত্রে তাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হলেও প্রণব মুখার্জির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপনে কখনো কার্পণ্য করেননি মমতা। দিল্লি গেলে প্রণব দার সঙ্গে দেখা না করার থাকতে পারতেন না মমতা। এমনকি প্রণব মুখার্জির মৃত্যুর পর তাকে অভিভাবক হিসেবেও উল্লেখ করেছিলেন মমতা ব্যানার্জি। এইদিন পূজার মঞ্চ থেকে প্রণবদার প্রতি আরেকবার শ্রদ্ধা জানান বোন মমতা।

চেতলা অগ্রণী ক্লাবের দেবী দুর্গার চক্ষু দান নিজের হাতে করেন মমতা। এরপর ওই মঞ্চ থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে গোটা রাজ্যের ২০০ এর বেশি দুর্গা পূজার উদ্বোধন করেন মমতা।

সূত্র: বিডি প্রতিদিন
আইএ/ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button