জাতীয়

বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে রাণী এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর যোগদান

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর – প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় অংশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ব্রিটেনের বর্তমান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁসহ কয়েকশ’ বিশিষ্ট ব্যক্তি এতে যোগ দিয়েছেন।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রানির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এই ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে অর্থাৎ চার্চটিতেই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ এবং রাজমুকুটে অভিষিক্ত হয়েছিলেন দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

অন্ত্যেষ্টিয়াক্রিয়ার শুরুতে জাতীয় পতাকায় ঢাকা রানির কফিনের ওপরে রাজকীয় মুকুট শোভিত কফিনটি রাজকীয় নৌবাহিনীর সদস্যরা কামানবাহী গাড়িতে টেনে গির্জায় নিয়ে আসেন। এরপর ভবনের ভেতরে উঁচু বেদির সামনে একটি প্লাটফর্মের ওপর রাখা হয় রানির কফিন।

এর আগে রানির জন্য ধর্মগ্রন্থ থেকে বাণী পাঠ করে শোনান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস এবং কমনওয়েলথের সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারনেস স্কটল্যান্ড।

এরপর রানির কফিন নিয়ে দ্বিতীয় পরিসেবার জন্য উইন্ডসরের পথে শুরু হয় শোকমিছিল। এই শোকমিছিলে রয়েছে মোট সাতটি গ্রুপ।

মিছিলের পেছনে পেছনে একটি গাড়িতে যাচ্ছেন কুইন কনসোর্ট ক্যামিলা এবং প্রিন্সেস অব ওয়েলস ক্যাথারিন। তাদের সামনে রয়েছেন রাজা চার্লস এবং রাজপরিবারের গুরুত্বপূর্ণ সদস্যরা। তারা কফিনের পেছনে পেছনে হাঁটছেন।

দ্বিতীয় একটি গাড়িতে করে যাচ্ছেন ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল এবং কাউন্টেস অব ওয়েসেক্স সোফি।

শোকমিছিলের একেবারে সামনে রয়েছে রাজকীয় ক্যানাডীয় মাউন্টেড পুলিশের দল। আর রানির কফিনের দু’পাশে রয়েছে কফিন বহনকারীদের দল ও দেহরক্ষীরা।

এখানকার আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রয়াত স্বামী ডিউক অব এডিনবরা, তার পিতা রাজা ষষ্ঠ জর্জ, রানি মাতা ও বোন প্রিন্সেস মার্গারিটের কবরের পাশে সমাহিত হবেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে ১৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাজ্যের লন্ডনে পৌঁছান। প্রধানমন্ত্রীর ছোট বোন এবং বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানাও তার সঙ্গে রয়েছেন।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার ছোট বোন শেখ রেহানাকে নিয়ে প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মরদেহের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে ওয়েস্টমিনস্টার প্যালেসে যান, যেখানে কফিনে রানির মরদেহ রাখা ছিল। তিনি ওয়েস্টমিনস্টার হলে রানির মরদেহের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং ল্যাঙ্কাস্টার হাউসে একটি শোক বইতে স্বাক্ষর করেন। শেখ রেহানাও শোক বইতেও স্বাক্ষর করেন।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button