জাতীয়

প্রধানমন্ত্রী ভারত থেকে কিছুই আনতে পারেননি

ঠাকুরগাঁও, ১৪ সেপ্টেম্বর – বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘ভারত থেকে ফিরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজকে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে সুস্পষ্টভাবে বলেননি যে উনি কি কি নিয়ে এসেছেন ভারতের কাছ থেকে বাংলাদেশের মানুষের জন্য। তবে আমরা যে আশা করেছিলাম তার কোনোটাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিয়ে আসতে পারেননি।’

আজ বুধবার বিকেলে ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়ি এলাকার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর সফর প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ভারত সফর করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কিছুই নিয়ে আসতে পারেনি। আমরা যেটা আশা করেছিলাম বাংলাদেশের প্রধান সমস্যা তিস্তার পানি বন্টনের সমস্যা, অভিন্ন নদীগুলোর পানি বন্টনের সমস্যা, সীমান্তে হত্যাবন্ধের সমস্যা; আমাদের ট্রেড ব্যালেন্সকে যেটা ইনব্যালেন্স আছে সেটাকে দূর করে ভারসাম্য সৃষ্টি করা; এ বিষয়গুলোর কোনো সমাধান আমরা পাইনি।’

জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির আগ্রহ নেই জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে বিএনপির কোনো বক্তব্য নেই। সেই সঙ্গে এই নির্বাচন নিয়ে বিএনপির কোনো আগ্রহ নেই। কারণ যতোক্ষণ পর্যন্ত নির্বাচনকালীন সময়ে সরকার পরিবর্তন না হচ্ছে।’

জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো জামায়াত প্রার্থী দিয়েছে এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে আমাদের কোনো বক্তব্য নেই। এই নির্বাচনে কে প্রার্থী দিলো, কি দিলো না এটাতে আমাদের কোন ইন্টারেস্ট নাই। আমাদের ইন্টারেস্ট একটা যেটা হলো নির্বাচনকালীন সময়ে সরকার পরিবর্তন করতে হবে, নিরপেক্ষ সরকার থাকতে হবে।’

জামায়াত তো বিএনপির ২০ দলীয় জোটে আছে এমন প্রশ্নে ফখরুল বলেন, ‘২০ দলীয় জোট সম্পর্কে আমরা ওভাবে বলছি না। তবে যুগোপথ আন্দোলন করবো আমরা সবাই।’

সম্প্রতি ওবায়দুল কাদেরের দেয়া বক্তব্য প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা আগেই বলেছি আমাদের নেতা খালেদা জিয়া। তার অবর্তমানে আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়া।’

শেখ হাসিনার অধীনে বিএনপি কোন নির্বাচনে যাবেনা এমন মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘শেখ হাসিনার অধীনে আমরা কোনো নির্বাচনে যাচ্ছিনা। কারণ নির্বাচন কমিশন সঠিকভাবে কাজ করবে না। এখানে নির্বাচনকালীন সময়ে নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার, মানে নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া এ দেশের মানুষ কোনো নির্বাচন গ্রহণ করবে না। কারণ ওই নির্বাচন কখনোই সুষ্ঠু বা অবাধ নির্বাচন হবে না।’

নিত্যপণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী নিয়ে বিএনপি আন্দোলন করেছে, ‘পরবর্তী সময় বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, ‘নিত্যপণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখীর বিষয় নিয়ে সারা দেশব্যাপী বিএনপি আন্দোলন করেছে গত ২২ আগস্ট থেকে। এর পরের কর্মসূচি ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে আপনারা দেখতেই পাচ্ছেন। ঢাকা মহানগরে জোনভিত্তিক সমাবেশ হচ্ছে। এরপর আবার আমরা জানাবো আমাদের নতুন কর্মসূচি সম্পর্কে।’

সম্প্রতি ঠাকুরগাঁওয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর হামলা প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসী দল, তারা সন্ত্রাসী করে টিকে থাকতে চায়। ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়াতে তার বর্হিপ্রকাশ আমরা দেখেছি।’

ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান, সহ-সভাপতি নুর করিম, সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সল আমীনসহ জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র: আমাদের সময়
এম ইউ/১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button