শিক্ষা

শিক্ষক ছাড়াই চলছে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগ

ময়মনসিংহ, ১৪ সেপ্টেম্বর – কোনো শিক্ষক ছাড়াই চলছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগ। বিভাগটির প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এক সেমিস্টার শেষ করে দ্বিতীয় সেমিস্টারে উত্তীর্ণ হলেও নিয়োগ হয়নি কোনো শিক্ষক। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিজে বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব নিয়ে অন্য বিভাগের শিক্ষক দিয়ে কোনোমতে পাঠদান কার্যক্রম চালাচ্ছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্কেটিং বিভাগ চালু হয়। আড়াই বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো বিভাগটিতে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়নি। এতে নানা ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা। তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বলছে, দ্রুত সময়ের মধ্যে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

উল্লেখ্য, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ৩০ জন শিক্ষার্থীর একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের এক সেমিস্টার শেষ হয়ে গেলেও এখনো নিয়োগ হয়নি কোনো শিক্ষক। এরই মধ্যে দ্বিতীয় ব্যাচের ভর্তির জন্য ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষাও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে আরও জানা যায়, মার্কেটিং বিভাগের প্রথম সেমিস্টারের পাঁচটি কোর্সের জন্য বিভিন্ন বিভাগের পাঁচজন শিক্ষক দিয়ে ক্লাস করানো হয়। বিভাগীয় প্রধান ও পরীক্ষা কমিটির সভাপতি হিসেবে উপাচার্যের তত্ত্বাবধানে তাদের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর দ্বিতীয় সেমিস্টারের পাঁচটি কোর্সের জন্য নতুন করে শিক্ষক চূড়ান্ত করেছেন বিভাগীয় প্রধান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার হুমায়ুন কবীর বলেন, ‘আমরা ২০১৯ সালে ইউজিসির অনুমোদন নিয়ে মার্কেটিং বিভাগে শিক্ষার্থীদের ভর্তি কার্যক্রম শুরু করি। পরবর্তী সময়ে শিক্ষক অনুমোদনের চাহিদা ইউজিসির কাছে পাঠালেও করোনাসহ নানা কারণে অনুমোদন পেতে দেরি হয়। তবে গত ৩১ মে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে ৭ জুলাই শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগামী সিন্ডিকেট সভায় শিক্ষক নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্ত হওয়ার জন্য উপস্থাপন করা হবে। সিন্ডিকেটের অনুমোদনের পর শিক্ষক নিয়োগ চূড়ান্ত হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সৌমিত্র শেখর বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের একাডেমিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে আমি নিজে বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব নিই। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই প্রথম সেমিস্টার সম্পন্ন করে দ্বিতীয় সেমিস্টারের ক্লাস শুরু করেছি। আগামী সিন্ডিকেট সভায় শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হবে।’

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button