নাটোর

নাটোরে প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চিতের ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ

নাটোর, ০৬ সেপ্টেম্বর – নাটোরের বড়াইগ্রামে ফুটবল টুর্নামেন্টে দাওয়াত না দেয়ায় প্রধান শিক্ষককে প্রকাশ্যে শিক্ষার্থীদের সামনে লাঞ্চিত ও হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এর প্রতিবাদে এবং অবিলম্বে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আটকের দাবিতে মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন।

অপরদিকে, পৃথক সংবাদ সম্মেলনে একই দাবি জানিয়েছেন স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের নেতারা। এ ঘটনায় সোমবার রাতেই প্রধান শিক্ষক বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকালে উপজেলার চান্দাই উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আন্তঃস্কুল ফুটবল টুর্নামেন্টের বাছাই পর্বের খেলা চলছিল। এ সময় চান্দাই গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদ ওরফে জুমার সরকারের ছেলে ওয়াদুদ সরকার মাতাল অবস্থায় স্কুলে যান। এ সময় তাকে খেলার অনুষ্ঠানে কেন দাওয়াত দেয়া হয়নি সে বিষয়ে প্রধান শিক্ষক ওবায়দুল হকের কাছে জবাব চান। এক পর্যায়ে তিনি প্রধান শিক্ষককে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজসহ শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ও অভিযুক্ত ওয়াদুদ সরকারকে গ্রেপ্তারের দাবিতে মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে সহকারী প্রধান শিক্ষক আবু শাহাব, সহকারী শিক্ষিকা স্বপ্নাআরা, দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী সিয়াম আহমেদ ও মিতু খান বক্তব্য রাখেন। এ সময় বক্তারা অবিলম্বে প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চনাকারী ওয়াদুদ সরকারকে গ্রেপ্তারের দাবি জানান। অন্যথায় মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধসহ বৃহত্তর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে জানান তারা।

একই ঘটনার প্রেক্ষিতে দুপুরে উপজেলা স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের উদ্যোগে একই দাবিতে বনপাড়া শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব সরকারি মহিলা কলেজে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক মোল্লার সভাপতিত্বে পরিষদের জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মোহাম্মদ তুঘলক ও উপজেলা সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান শাহীন বক্তব্য রাখেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ওয়াদুদ সরকার বলেন, প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে আমার তর্ক-বিতর্ক হয়েছে। তবে তাকে লাঞ্চিত করার অভিযোগ সঠিক নয় বলে দাবি তার।

বড়াইগ্রাম থানার ওসি আবু সিদ্দিক জানান, এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্তকে আটকের চেষ্টা চলছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button