মধ্যপ্রাচ্য

হিজাববিহীন নারীদের দণ্ড দিতে পাতাল রেলে ক্যামেরা বসাচ্ছে ইরান

তেহরান, ৫ সেপ্টেম্বর – ইরানের নারীরা কঠোর পোশাক পরার স্থানীয় নীতি মেনে চলছে কি না তা নজরদারি করতে পাতাল রেলে ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। যেসব নারী হিজাব পরিধান করবে না তাদের শনাক্ত করে জরিমানা করা হবে। দেশটির সদগুণ প্রচার এবং দুষ্কর্ম প্রতিরোধ সম্পর্কিত সরকারি কমিটির সেক্রেটারি মোহাম্মদ-সালেহ হাশেমি-গোলপায়েগানি এসব তথ্য জানিয়েছেন। খবর আল অ্যারাবিয়ার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পাওয়া এক সাক্ষাৎকারে হাশেমি-গোলপায়েগানি বলেছেন, ‘প্রযুক্তির ব্যবহার করে আমরা এখন চাইলেই যেকোনো ছবির সাথে জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি মিলিয়ে দেখতে পারি। এভাবেই আমরা হিজাব ছাড়া নারীদের শনাক্ত করব। ’

১৯৭৯ সালে বিপ্লবের পর ইসলামী প্রজাতন্ত্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে ইরান। এর পরপরই দেশটি নারীদের জন্য হিজাব পরা বাধ্যতামূলক করে।

জানা গেছে, যেসব নারী তাদের চুল সম্পূর্ণরূপে না ঢেকে আংশিকভাবে ঢেকে কঠোর পোশাক নীতি ভঙ্গ করে তাদের ইরানের নৈতিকতা বিষয়ক পুলিশ দ্বারা হয়রানি ও গ্রেপ্তারের ঝুঁকি থাকে।

এদিকে রবিবার সদগুণ প্রচার এবং দুষ্কর্ম প্রতিরোধ সম্পর্কিত সরকারি কমিটির মুখপাত্র আলী খানমোহাম্মদি দেশটির আধাসরকারি ফার্স বার্তা সংস্থাকে বলেছেন, হিজাববিরোধী গোষ্ঠীর তিন শতাধিক নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী।

তবে কখন এই গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা জানাননি খানমোহাম্মদি। এ ছাড়া এই গ্রেপ্তারের ব্যাপারে ইরানের পুলিশ অথবা গোয়েন্দা মন্ত্রণালয় থেকেও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

সূত্র: কালের কন্ঠ
আইএ/ ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button