দক্ষিণ এশিয়া

দু’দিনে ২ জনকে বিয়ে! পুরোহিত কনের পরিচয়পত্র চাইতেই ভুয়ো বিয়ের চক্র ফাঁস

নয়াদিল্লী, ০২ সেপ্টেম্বর – বিয়ের নামে প্রতারণা! বরপক্ষকে ফাঁদে ফেলে বিয়ের নামে টাকাপয়সা হাতিয়ে নিতো, এরপর পালিয়ে যেতো ভুয়া কনেপক্ষ। গত সপ্তাহে ভারতের পাঞ্জাবে এমনই এক চক্রের সাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, হরিয়ানার ফতেহাবাদের বাসিন্দা দর্শনা দেবী ছেলে রবি কুমারের জন্য পাত্রী খুঁজছিলেন। ওম প্রকাশ ও জসবিন্দর গিল নামে দুই ব্যক্তির মাধ্যমে পছন্দসই কনের সন্ধানও পান। তারা জানান, দীপ নামে ওই পাত্রী পাঞ্জাবের ফিরোজপুরের বাসিন্দা।

দর্শনা দেবীর দাবি, কনের সন্ধান দেওয়ায় ওম ও জসবিন্দরকে শুরুতেই ৩১ হাজার রুপি দিতে হয়েছিল।

এরপর গত মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) ফিরোজপুরে ছিল আনুষ্ঠানিক বিয়ে। আইনি কাজ সারতে কনে ও তার বাড়ির লোকের পরিচয়পত্র চাওয়া হয়। তখন মিত অরোরা ও তারা অরোরা নামে দু’টি পরিচয়পত্র দেওয়া হয় বরপক্ষকে। কিন্তু সেগুলো দেখে পুরোহিত দাবি করেন, আগের দিন একই নাম ব্যবহার করে একজনকে বিয়ে দিয়েছেন তিনি।

একথা শুনে সন্দেহ হয় বরপক্ষের। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ বুঝতে পারে, দর্শনা ও তার ছেলের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে। পুরোহিত না চিনতে পারলে টাকা-গয়না নিয়ে পালিয়ে যেতো প্রতারক চক্র।

এ ঘটনায় ওম প্রকাশ, বীণা শর্মা, নেহা, জসবিন্দর সিং, দীপ, তারা অরোরা ও মিত অরোরা নামে সাতজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় আইনের একাধিক ধারায় মামলা করা হয়েছে।

অভিযুক্তরা এ ধরনের কতগুলো প্রতারণার সঙ্গে যুক্ত তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। অভিযুক্তদের তিন দিন পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন স্থানীয় আদালত।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ০২ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button