জাতীয়

আমরা কাউকে আক্রমণ করবো না

ঢাকা, ৩১ আগস্ট – জনপ্রিয়তা যাচাইয়ে বিএনপিকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচনে আসুন, প্রতিদ্বন্দ্বিতা করুন। দেখবেন কার কত ভোট আছে, কে কত জনপ্রিয়, পরিষ্কার হয়ে যাবে। দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘কোনও অবস্থাতেই মাথা গরম করা যাবে না। আমরা কাউকে আক্রমণ করবো না। আক্রমণ হলে পাল্টা আক্রমণ হবে।’

বুধবার (৩১ আগস্ট) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কৃষক লীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আজকে যারা মানবাধিকার ও গুমের কথা বলেন, খুনের কথা বলেন, আবার বলেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিচার করবেন। গুম আর খুনের জন্য এ কথাও প্রকাশ্যে বলেন। ফখরুল সাহেব (বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর) একটা প্রশ্নেরও জবাব দিতে পারেননি।’

কাদের বলেন, ‘জিয়াউর রহমান কেন বঙ্গবন্ধু হত্যকারীদের রক্ষা করতে সংসদে আইন পাস করলেন। এই প্রশ্ন করলেই আপনি এড়িয়ে যান। জবাব পাই না। এবার দেখলাম, ১৫ তারিখে খালেদা জিয়ার জন্মদিন আরেকটু আড়াল করে ১৬ আগস্ট দোয়া মাহফিল…। দোয়া মাহফিল তার জন্য করেন আপত্তি নেই, কিন্তু ভুয়া জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল— এখানে গোটা জাতির আপত্তি আছে।’

মির্জা ফখরুল আলমগীরকে উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কার বিচার করবেন? আপনাদের অনেকের বিচার বাকি রয়েছে। আদালত শুধু প্রচলিত আদালত নয়, ইতিহাসের আদালত, জনতার আদালতও আছে, নিয়তির আদালতও আছে।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের ২১ হাজার নেতাকর্মীকে হত্যা করেছেন। কত নারীর সম্ভ্রম নষ্ট করেছেন। ভুলে গেছেন আহসানউল্লাহ মাস্টার, মঞ্জুরুল ইমাম, শাহ এস এম কিবরিয়া, এভাবে কতজন… যশোরের সাংবাদিক শামসুর রহমান, খুলনার মানিক লাল, বালু ভাই, কত হত্যাকাণ্ড এই বাংলায় সংঘটিত করেছেন। এগুলোর বিচার হবে না? এগুলো কি মানবাধিকার লঙ্ঘন নয়? আওয়ামী লীগের এত নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে, বিচারের মুখোমুখি আরও বাকি আছে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নিজের দলের জামালউদ্দিনকে চট্টগ্রামে অপহরণ করে তাকে হত্যা করা হলো। পরে জানা গেলো, জামালউদ্দিনকে হত্যা করেছে বিএনপি। সেই গুমের খবর কি ফখরুল সাহেব জানতেন না? লালবাগে আমাদের মাহফুজ বাবুকে ধরে নিয়ে গুম করেছেন আজ পর্যন্ত কেউ জানে না, তার পরিবার জানে না। এর জবাব দেবেন কি ফখরুল সাহেব?’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সত্যি যারা গুম হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ— এমন কোনও ঘটনা থাকলে প্রয়োজনে তদন্ত করে বের করা হবে। এখানে আমাদের কোনও ভয় নেই। সত্য সত্যই। নিজের দলের লোকদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে শেখ হাসিনা এ যাবৎ কখনও কুণ্ঠিত হয়নি। দলের লোক অন্যায় করে বিনা শাস্তিতে পার হওয়ার উপায় নেই।’

তিনি বলেন, ‘ভয়কে যারা জয় করতে জানে না, তাদের রাজনীতি করার কোনও অধিকার নেই। এরা কাপুরুষ। কাজেই ভয়কে জয় করতে শিখুন। ১৩ বছর ধরে চিৎকার করছেন, জনগণ সাড়া দেয়নি।’

কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনা তেলের দাম কমিয়ে দেন। পৃথিবীতে তেলের দাম কমিয়ে দেওয়ার কোনও নজির নেই। সেটাও আপনারা কটূক্তি করেছেন। ধন্যবাদ না জানিয়ে কটূক্তি করছেন। এটা হচ্ছে বিএনপির রাজনীতি।’

এ সময় দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে কাদের বলেন, ‘কোনও অবস্থাতেই মাথা গরম করা যাবে না। আমরা কাউকে আক্রমণ করবো না। আক্রমণ হলে পাল্টা আক্রমণ হবে।’

কৃষক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শরীফ আশরাফ আলী সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতি। এসময় বক্তব্য রাখেন— আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী প্রমুখ।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন
এম ইউ/৩১ আগস্ট ২০২২

Back to top button