সম্পর্ক

নারী না পুরুষ, পরকীয়ায় ঝোঁক কাদের বেশি?

বিয়ের মতো চিরবন্ধনের সম্পর্ক ইদানিং কেমন যেন ঠুনকো সম্পর্কে রূপ নিয়েছে। হঠাৎ করেই প্রেম হচ্ছে, অল্প সময়ের মধ্যে আবার সেই সম্পর্ক রূপ নিচ্ছে বিয়েতে। কিন্তু বিয়ের সম্পর্ক টিকছে না বেশি দিন। অহরহ ঘটছে বিচ্ছেদের ঘটনা। তবে বিচ্ছেদের পেছনে অনেক কারণ থাকলেও পরকীয়া একটি অন্যতম কারণ বলে ধারণা করেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা।

পরকীয়ার ক্ষেত্রে অধিকাংশ অভিযোগের আঙুল ওঠে পুরুষের দিকে। এমনিতে পরকীয়া কারা করেন? কেনই বা করেন? এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পাওয়া সহজ নয়। বর্তমানে মোবাইল ফোন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকসহ নানা প্রযুক্তি মানুষের হাতের মুঠোয়, তাই পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে তোলা অনেক সহজ।

অনেকেই ধারণা করেন, বিবাহিত সঙ্গীর সঙ্গে মানসিক দূরত্ব এবং শারীরিক অপূর্ণতা থেকেই পরকীয়া সম্পর্কে এগোয় মানুষ। যদিও সাম্প্রতিক একটি সমীক্ষা বলছে, পুরুষ নয়, পরকীয়ায় বেশি আগ্রহ নারীদের।

সাধারণত ধারণা করা হয়, সঙ্গীরা যৌনতার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলায় পুরুষেরা পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। কিন্তু বিজ্ঞান বলছে অন্য কথা। নারীদের সারা জীবন একই সঙ্গীর সঙ্গে থাকতে সমস্যা হয়। তারা পুরুষদের তুলনায় যৌন সম্পর্কে অনেক বেশি রোমাঞ্চ এবং বৈচিত্র পছন্দ করেন।

নৃবিজ্ঞানী এবং আনট্রু নামের বইয়ের লেখক, ওয়েডসডে মার্টিন এসব বিষয় নিয়ে গবেষণা করেন। তিনি বলেন, ‘একটি বয়সের পর নারীদের যৌন চাহিদা কমে যায়, এমনটা নয়। তবে তারা একই রকম যৌনজীবন কাটাতে পছন্দ করেন না, বৈচিত্রের খোঁজ করেন।’

নেভাডা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণায় দেখা গেছে, এক বিয়ে পুরুষদের তুলনায় নারীদের যৌন ইচ্ছা কমিয়ে দেয়। ‘গ্লিডেন’ নামের একটি বিবাহ বহির্ভূত ডেটিং অ্যাপ সম্প্রতি এই সমীক্ষাটি চালিয়েছে। এই অ্যাপটি মূলত তৈরি হয়েছে নারীদের জন্য। সেখানে ৩০ থেকে ৬০ বছর বয়সী শহুরে, শিক্ষিত, আধুনিকা, কর্মরতা নারীদের ওপর সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গেছে, প্রায় ৪৮ শতাংশ নারী পরকীয়া সম্পর্কে রয়েছেন। আর এই নারীদের একটি বড় অংশই একটি সন্তানের মা।

এম ইউ

Back to top button