আইন-আদালত

বন্ডে আমদানির কাপড় খোলাবাজারে বিক্রি প্রসঙ্গে হাইকোর্টের রুল

ঢাকা, ৩০ আগস্ট – বন্ডের অধীনে আমদানি করা কাপড় খোলাবাজারে বিক্রির অবৈধ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা কেন নেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

রুলে এসব ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না এবং বাদীর করা সংশ্লিষ্ট দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে কেন তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হবে না তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।

এছাড়া আদালত অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দিয়েছেন। আদেশে দুদকের চেয়ারম্যান, এনবিআর চেয়ারম্যান, কমিশনার অব কাস্টমস, কাস্টমস বন্ড কমিশনার এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের নিকট দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে বাদীর আবেদন তিন মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আর পরবর্তী দুই সপ্তাহের মধ্যে এফিডেভিড আকারে তা আদালতে দাখিখের নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে আদালত বিভিন্ন কোম্পানির বিরুদ্ধে দুর্নীতির বিষয়ে আনীত অভিযোগ তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন বলে জানিয়েছেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।

মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন। আদালতে আজ আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক।

এ বিষয়ে মনজিল মোরসেদ জানান, বন্ডের অধীনে শুল্কমুক্ত কাপড় আমদানির অনুমতি দেওয়ার পর কতিপয় ব্যবসায়ী সেই কাপড় খোলাবাজারে বিক্রি করে দুর্নীতির মাধ্যমে হাজার হাজার কোটি টাকা আয় করে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অজানা কারণে নীরব থাকায় বিভিন্ন মিডিয়ায় খবর প্রকাশিত হলে বিষয়টি সম্পর্কে বাংলাদেশ ব্যাংক, দুদক, সিআইডি ও কাস্টমস কর্তৃপক্ষের নিকট তদন্ত করার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের লিখিত অভিযোগ জানানো হয়।

তিনি বলেন, কিন্তু কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় চট্টগ্রামের বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন সোমবার (২৯ আগস্ট) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট আবেদন দায়ের করেন। রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট রুল জারি নির্দেশ দেন।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ৩০ আগস্ট ২০২২

Back to top button