জাতীয়

ভিয়েতনামের কাছ থেকে আড়াই লাখ টন চাল কিনছে সরকার

ঢাকা, ৩০ আগস্ট – দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ভিয়েতনামের কাছ থেকে দুই লাখ ৩০ হাজার টন চাল কিনছে সরকার। দেশের বাজারে চালের দাম কমাতে এবং মজুত বাড়াতে এসব চাল আমদানি করা হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের জানান কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

এর আগে দুপুর আড়াইটার দিকে ঢাকায় নিযুক্ত ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত কৃষিমন্ত্রীর সঙ্গে তার দপ্তরে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী।

ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘চাল আমদানির জন্য দুই দেশের সরকারের মধ্যে জিটুজি চুক্তি হয়েছে। আগামী ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে দুই লাখ ৩০ হাজার টন চাল বাংলাদেশে পৌঁছাবে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ভিয়েতনাম থেকে আমদানি করা চালের মধ্যে দুই লাখ টন আধা সেদ্ধ চাল এবং বাকি ৩০ হাজার টন আতপ। ভিয়েতনামের প্রতি টন সেদ্ধ চালের দাম পড়ছে ৫২১ ডলার এবং আতপ চালের দাম ৪৯৪ ডলার।

এর আগে গত রোববার জারি করা এক প্রজ্ঞাপনে চালের আমদানি শুল্ক তুলে নেওয়ার কথা জানায় সরকার। একই সঙ্গে বাজারে সরবরাহ বাড়াতে চাল আমদানিতে নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়।

চাল আমদানি সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সুগন্ধি চাল ছাড়া অন্য যে কোনো চাল অর্থাৎ সেদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির ক্ষেত্রে এ সুবিধা প্রযোজ্য হবে। চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ সুবিধা বহাল থাকবে বলেও সেখানে উল্লেখ করা হয়।

বিশ্বের শীর্ষ চাল উৎপাদনকারী দেশগুলোর অন্যতম বাংলাদেশ। দেশে বছরে সাড়ে তিন কোটি টন চাল উৎপাদন হয়। উৎপাদিত চালের বেশিরভাগই ব্যবহৃত হয় স্থানীয় খাদ্য চাহিদা মেটাতে। তবে কোনো বছর খরা বা বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিলে তখন ঘাটতি মেটাতে অন্য দেশ থেকে চাল আমদানি করতে হয় বাংলাদেশকে।

সূত্র: আমাদের সময়
এম ইউ/৩০ আগস্ট ২০২২

Back to top button