রাজবাড়ী

টাকার জন্য শিকল দিয়ে বেধে যুবককে নির্যাতন

মাসুদ রেজা শিশির

রাজবাড়ী, ৩০ আগস্ট – রাজবাড়ীর পাংশায় পাওনা টাকা পরিশোধ করতে না পারায় পায়ে শিকল পরিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় তিন দিন যাবত বেঁধে রেখে একযুবককে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে পাংশা পৌর এলাকার ৫ নং ওয়ার্ডের শহীদ শেখ ও তার ছেলেদের বিরুদ্ধে। নির্যাতনের শিকার মিঠু মোল্লা (৩৩) পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার কাদুয়া গ্রামের মৃত দিনু মোল্লার ছেলে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পৌর এলাকার সত্যজিৎপুর গ্রামের আবুল শেখের ছেলে শহিদ শেখের বাড়ির ঘরের বারান্দায় বাঁশের দুটি খুঁটির সঙ্গে পায়ে শিকল পড়িয়ে তালা বন্ধ করে বেঁধে রাখা হয়েছে ঐ যুবকে। কি কারণে তাকে বেঁধে রাখা হয়েছে জানতে চাইলে বাড়ির মালিক শহিদ শেখ বলেন, আমিসহ আরো কয়েকজন তার কাছে টাকা পাব সে টাকা দেয়নি বলে তাকে বেঁধে রাখা হয়েছে। তবে টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন ওই যুবক।

ঘটনার বিষয়ে মিঠু মোল্লার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত পরশুদিন রবিবার (২৮ আগস্ট) উপজেলার হাবাসপুর পদ্মা নদীর ঘাট থেকে আমাকে ধরে নিয়ে এসে পায়ে শিকল পরিয়ে বেঁধে রাখে শহীদ শেখ ও তার ছেলেরা।

এ বিষয়ে মুঠোফোনের মাধ্যমে পাংশা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মাদ মাসুদুর রহমানকে জানালে, তাৎক্ষণিক তিনি এস আই কামরুলের নেতৃত্বে একটি টিম পাঠিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। ঘটনার সাথে জড়িত কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে পাংশা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান জানান, ঘটনা শোনার পর পর ফোর্স পাঠিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে, তবে উক্ত বিষয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় বর্বর নির্যাতনের ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তবে ভিকটিম যেহেতু টাকা পয়সা আত্মসাৎ করেছে যদি তারা ভিকটিমের বিরুদ্ধে মামলা করতে চাইলে মামলা করতে পারবে।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ
এম ইউ/৩০ আগস্ট ২০২২

Back to top button