দক্ষিণ এশিয়া

সাম্প্রদায়িক হিংসার সব মামলা থেকে মুক্তি পেলেন যোগী আদিত্যনাথ

নয়াদিল্লি, ২৬ আগস্ট – সাম্প্রদায়িক হিংসার সব মামলা থেকে রেহাই পেলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। ২০০৭ সালের গোরক্ষপুরে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। শুক্রবার সেই মামলা থেকে যোগীকে অব্যাহতি দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালেও একই রায় দিয়েছিল এলাহাবাদ হাইকোর্ট।

শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে আনন্দবাজার।

গত বুধবারই এই মামলার শুনানি শেষ হয়ে গেলেও রায়দান স্থগিত রাখা হয়েছিল। শুক্রবার কর্মজীবনের শেষ দিনে বিচারপতি এন ভি রামানা জানিয়েছেন, ২০০৭ সালে হিংসা ছড়ানোর কারণে যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা যাবে না। কারণ হিসাবে জানানো হয়েছে, এই মামলা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া অর্থহীন। সেই কারণেই যোগীর বিরুদ্ধে সমস্ত মামলা খারিজ করে দেওয়া হল।

২০০৭ সালে গোরক্ষপুরের তৎকালীন বিধায়ক যোগীর বিরুদ্ধে একটি সভায় উসকানিমূলক মন্তব্য করার অভিযোগ আনা হয়। তারপরে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসেন যোগী। সেই সময়েই সরকারের তরফে দাবি করা হয়, এই ঘটনার তদন্ত করতে গেলে প্রভাব খাটানোর অভিযোগ উঠতে পারে। যেহেতু অভিযোগের কেন্দ্রে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী, তাই নিরপেক্ষ তদন্ত নাও হতে পারে। এই মর্মেই ২০১৮ সালে এলাহাবাদ হাইকোর্ট জানিয়ে দেয়, যোগীর মামলা চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার দরকার নেই।

সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন পারভেজ পারওয়াজ নামে এক ব্যক্তি। শীর্ষ আদালতে তিনি আবেদন জানিয়ে বলেন, সরকার চাইলেই মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ করতে পারে। কিন্তু হাইকোর্টের রায়ে সেই বিষয়ে কিছুই বলা হয়নি। অন্যদিকে উত্তরপ্রদেশ সরকারের আইনজীবী মুকুল রোহতগি জানিয়ে দেন , যোগীর যে বক্তব্য ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়েছে, এমন কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তদন্ত করতে গিয়ে যে ভিডিওগুলো পাওয়া গিয়েছিল, সেগুলিও বিকৃত অবস্থায় ছিল। সব মিলিয়ে ২০০৭ সালের সমস্ত মামলা থেকে নিষ্কৃতি পেয়ে গেলেন যোগী।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/২৬ আগস্ট ২০২২

Back to top button