দক্ষিণ এশিয়া

ভারতে ছাড়াতে পারে ‘টমেটো ফ্লু’, সতর্ক করলেন বিজ্ঞানীরা

নয়াদিল্লি, ২১ আগস্ট – ভারত যখন করোনভাইরাস এবং মাঙ্কিপক্সের সঙ্গে লড়াই করছে, তখনই ‘টমেটো ফিভার’ বা ‘টমেটো ফ্লু’ ভাইরাস উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত ভারতে এই ভাইরাসে সংক্রমিতের সংখ্যা খাতায়কলমে ৮২।

‘দ্য ল্যানসেট রেসপিরেটরি জার্নাল’-এর একটি প্রতিবেদন অনুসারে, প্রাথমিকভাবে কেরালার কোল্লামে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে এই রোগটির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। গত ৬ মে পর্যন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে এই কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদন বলা হয়েছে, আমরা কোভিড-১৯-এর চতুর্থ ঢেউয়ের মোকাবিলার জন্য যখন প্রস্তুত হচ্ছিলাম, তখনই অন্য দিকে একটি অন্য সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছিল। টমেটো ফ্লু বা টমেটো জ্বর নামে পরিচিত এই নতুন ভাইরাস ভারতের কেরালা রাজ্যে ৫ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে এই সময়েই সংক্রমণ ঘটাতে শুরু করেছে।
টমেটো ফ্লু যে একেবারেই হালকাভাবে নেওয়ার মতো সংক্রমণ নয়, তা পরিষ্কার করা হয়েছে এই প্রতিবেদনে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘সংক্রামক এই রোগটি কেরালার আঁচল, আরিয়ানকাভু এবং নেদুভাথুর অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এই রোগের কারণে আশপাশের রাজ্যগুলোকেও সতর্ক করা হয়েছে। বলা হয়েছে, তামিলনাড়ু এবং কর্ণাটকের মতো প্রতিবেশী রাজ্য যেন এই বিষয়ে প্রস্তুত থাকে। সেখানেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

টমেটো জ্বর বা টমেটো ফ্লু কী?

টমেটো ফ্লু বা টমেটো জ্বর হলো একটি বিরল ভাইরাসঘটিত রোগ, যা ত্বকে লাল রঙের ফুসকুড়ি, জ্বালা এবং ডিহাইড্রেশন সৃষ্টি করে।

এর সঙ্গে টমেটোর কী সম্পর্ক?

টমেটোর সঙ্গে এই সংক্রমণের কোনো সম্পর্ক নেই। তবে এই রোগে সংক্রমিত হলে ত্বকে লালচে ফোস্কা পড়ে। তাই সেখান থেকে এর নাম হয়েছে টমেটো জ্বর বা টমেটো ফ্লু। এটি পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ছড়াতে পারে বলে এখন পর্যন্ত মনে করা হচ্ছে।

টমেটো জ্বরের লক্ষণ

ফুসকুড়ি এবং ত্বকের জ্বালা ছাড়াও, এখানে ভাইরাল রোগের কিছু সাধারণ লক্ষণ রয়েছে। লক্ষ্য করা গেছে এটিতে সংক্রমিত হলে:

মাত্রাতিরিক্ত জ্বর হয়
শরীরের নানা জায়গায় ব্যথা হতে পারে
জয়েন্ট বা গাঁট ফুলে যেতে পারে
ডিহাইড্রেশন হয়
প্রচণ্ড ক্লান্ত লাগে

কীভাবে টমেটো জ্বর বা টমেটো ফ্লু মোকাবিলা করা যায়?

শিশুর ফ্লুয়ের লক্ষণ দেখা দিলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। সংক্রমিত শিশুকে অবশ্যই ফোস্কা চুলকানো থেকে বিরত রাখতে হবে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতে হবে। নির্দিষ্ট পরিমাণে জল খাওয়াতে হবে। তার সঙ্গে সঠিক পরিমাণে বিশ্রামের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র: বিডি প্রতিদিন
এম ইউ/২১ আগস্ট ২০২২

Back to top button