উত্তর আমেরিকাএশিয়া

বাইডেনকে বলেও পেলোসির সফর আটকাতে পারেননি জিনপিং

ওয়াশিংটন, ২১ আগস্ট – চীনের হুমকি উপেক্ষা করে চলতি মাসের শুরুতে তাইওয়ান সফরে গিয়েছিলেন মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। এই সফর রুখতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে ফোন করেছিলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, মার্কিন হাউসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে তাইওয়ান সফর থেকে বিরত রাখতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে বলেছিলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। গত মাসে ফোনালাপের সময় বাইডেনকে একথা বলেন তিনি।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ফোনালাপে প্রেসিডেন্ট জিনপিংয়ের উদ্বেগ প্রত্যাখ্যান করা হয়। পেলোসির সফরকে কেন্দ্র করে বেইজিংয়ের কোনো ধরনের ‘উস্কানিমূলক’ পদক্ষেপের বিরুদ্ধেও শি জিনপিংকে সতর্ক করা হয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে বলেন, তাইওয়ানে সফর না যেতে তিনি পেলোসিকে ‘বাধ্য করতে পারেন না’ কারণ মার্কিন কংগ্রেস সরকারের একটি স্বাধীন শাখা এবং পেলোসি বিদেশ সফরের বিষয়ে নিজেই নিজের সিদ্ধান্ত নেবেন।

মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র অ্যাড্রিয়েন ওয়াটসন বলেছেন, ‘কংগ্রেসের সদস্যরা কয়েক দশক ধরে তাইওয়ানে সফর করেছেন এবং তা অব্যাহত রাখবেন। স্পিকার পেলোসির (সেখানে) যাওয়ার অধিকার ছিল এবং তার সফর আমাদের দীর্ঘদিনের এক-চীন নীতির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। ’

চলতি আগস্টের শুরুতে তাইওয়ান ভ্রমণ করেন ন্যান্সি পেলোসি। ১৯৯৭ সালের পর এটিই ছিল দ্বীপটিতে শীর্ষ মার্কিন রাজনীতিকের তাইওয়ান সফর। এই সফরকে কেন্দ্র করে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উত্তেজনা তুঙ্গে ওঠে।

তাইওয়ান পূর্ব এশিয়ার একটি দ্বীপ, যা তাইওয়ান প্রণালীর পূর্বে চীনা মূল ভূখণ্ডের দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলে অবস্থিত। তাইওয়ানকে বরাবরই নিজেদের একটি প্রদেশ বলে মনে করে থাকে বেইজিং। ১৯৪৯ সালে চীনে কমিউনিস্টরা ক্ষমতা দখল করার পর তাইওয়ান দেশটির মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

সূত্র: এনডিটিভি
এম ইউ/২১ আগস্ট ২০২২

Back to top button