সিলেট

স্ত্রী-শাশুড়িকে কুপিয়ে যুবকের আত্মহত্যাচেষ্টা

সিলেট, ২০ আগস্ট – সিলেটে স্ত্রী ও শাশুড়ির গলায় কুপিয়ে নিজের গলায়ও ছুরি চালিয়েছেন শাহজাহান আহমদ নামের এক যুবক। তিনজনকেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পারিবারিক কারণে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সিলেট নগরের বাদামবাগিচার ২নম্বর রোডের ২৩/২ নম্বর বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

এ তথ্য নিশ্চিত করে সিলেট মহানগর পুলিশের এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানান, পারিবারিক বিরোধের জের ধরে শক্রবার সন্ধ্যায় প্রথমে স্ত্রীর গলায় ছুরি চালান তাকে বাঁচাতে শ্বাশুড়ি এগিয়ে এলে তাকেও গলা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করেন। পরে নিজে নিজের গলায় ছুরি চালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন শাহজাহান।
তিনি বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। সেখান থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান- গত ১ আগস্ট বিয়ানীবাজার উপজেলার চারখাই এলাকার বাসিন্দা শাহজাহান আহমদ (৩০) এর স্ত্রী সুলতানা বেগম ফারজানা (২৫) ও শাশুড়ি রোকসানা বেগম (৫৪) নগরের বাদাম বাগিচার বকুল মিয়ার ২৩/২ নম্বর বাসা ভাড়া নেন। ওই বাসায় দুই সন্তানকে নিয়ে থাকতেন তার স্ত্রী ও শাশুড়ি। মাঝেমধ্যে স্বামী শাহজাহানও আসতেন।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শাহজাহান তার স্ত্রী ফারজানার সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে গলা কেটে ফেলেন। এসময় শ্বাশুড়ি রোকসানা বেগম মেয়েকে রক্ষায় এগিয়ে এলে শাশুড়িরও গলা কেটে ফেলেন। তারপর নিজের গলায় ছুরি চালান তিনি। এসময় তাদের সন্তানদের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। সিটি করপোরেশনের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশকে খবর দেন।

কাউন্সিলর শামীম উপস্থিত সবাইকে সঙ্গে নিয়ে আহত স্ত্রী ও শাশুড়িকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। এর পর পুলিশ এসে শাহজাহানকেও ওসমানীতে পাঠান। জানা গেছে আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ২০ আগস্ট ২০২২

Back to top button