জাতীয়

আ.লীগ ১৪ বছরে বিএনপির ওপর কোনো অত্যাচার করেনি

ভোলা, ০৯ আগস্ট – আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও ভোলা-১ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আমরা একনাগাড়ে ১৪ বছর রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায়। এই ১৪ বছরে বিএনপির ওপর কোনো নির্যাতন, কোনো অত্যাচার করিনি। অথচ ২০০১ সালে আমরা ক্ষমতা হস্তান্তরের পরেই বিএনপি আমাদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। অনেকের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে, অনেকে বাড়িঘরে থাকতে পারেনি।

বিএনপি যখনই সুযোগ পায় তখনই আমাদের ওপর অত্যাচার করে। সুতরাং আমরা ১৪ বছর ক্ষমতায় থেকে প্রতিশোধ নিতে পাড়তাম। আমরা প্রতিশোধ বা প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করি না।
আজ মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে ভোলা জেলা পরিষদ হলরুমে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

গত ৩১ আগস্ট ভোলায় পুলিশের সাঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সেদিন ভোলাতে সমাবেশে অহেতুক ঘটনা ঘটিয়েছে। সমাবেশ করেছে ভালো, সব দলই সমাবেশ করতে পারে। কিন্তু সমাবেশের মাধ্যমে যেভাবে তাঁরা (বিএনপি) পুলিশের ওপর তাণ্ডবলীলা চালিয়েছে, যা আমাদের শাসন আমলে গত ১৪ বছরে এমন ঘটনা ঘটেনি।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে তোফায়েল আহমেদ বলেন, সময় এসেছে আপনাদের সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকার। সবাই যদি ঐক্যবদ্ধ থাকেন কেউ কিছু করতে পারবে না, ইনশাআল্লাহ। প্রত্যেকটা ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে শক্তিশালী আওয়ামী লীগ গড়ে তুলতে হবে। যাতে করে ডাক দিলে ১০ হাজার লোক এসে উপস্থিত হয়। এ কথা মনে রাখতে হবে। আবার যদি বিএনপি এ অত্যাচার শুরু করে পাল্টা জবাব দিতে হবে।

বিএনপির বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের প্রবীণ এ নেতা বলেন, বিএনপি কথায় কথায় বলে আওয়ামী লীগের পায়ের তলায় মাটি নাই। এ ১৪ বছর ধরে বিএনপির মহাসচিবের মুখ থেকে এ একটাই কথা আমরা শুনি। আমি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ধন্যবাদ জানাই। সে বক্তৃতা দিয়ে ও প্রেস ব্রিফ্রিং করে বিএনপি দলটিকে টিকিয়ে রেখেছেন। এ ছাড়া তাদের আর কোনো কাজ নাই। তিনি বলেছেন, যেকোনো সময় আমরা বিদায় নেব। এত সহজ? বারবার আমাদের দ্বারা বিদায় নিয়েছে বিএনপি।

জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা দোস্ত মাহমুদের সভাপতিত্বে মতবিনিময়সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আজিজুল ইসলাম, ভোলা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজিবুল্লাহ নাজু, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলী নেওয়াজ পলাশ, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আতিকুর রহমান, শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহে আলম, শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফারুক, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. আবু সায়েম, জেলা মৎস্যজীবী লীগের আহ্বায়ক হাসান আলী খান, জেলা যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক খাদিজা আক্তার স্বপ্না, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি মামুন আল রশিদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মুজাহিদুল ইসলাম তুহিন, তাঁতী লীগের আহ্বায়ক এনামুল হক ফরমান, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রাইহান আহমেদ।

সূত্র: কালের কণ্ঠ
এম ইউ/০৯ আগস্ট ২০২২

Back to top button