দক্ষিণ এশিয়া

র‍্যাম্পে হাঁটার কারণে বদলি হলেন পাঁচ মহিলা পুলিশকর্মী

চেন্নাই, ০৫ আগস্ট – পেশায় তাঁরা পুলিশ (Police)। উর্দি পরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করেন। কিন্তু এরই পাশাপাশি সৌন্দর্য প্রতিযোগিতাতেও অংশ নিয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু সেটাই যেন কাল হল। এহেন ‘অপরাধের’ ফলে বদলি করে দেওয়া হল পাঁচ মহিলা পুলিশকর্মীকে। তামিলনাড়ুর (TamilNadu) এই ঘটনায় বেশ হতবাক সাধারণ মানুষ।

জানা গিয়েছে, গত রবিবার একটি বেসরকারি সংস্থা ওই বিউটি প্যাজেন্টের আয়োজন করেছিল। সেখানে বিশেষ অতিথি হিসাবে হাজির ছিলেন অভিনেত্রী ইয়াশিকা আনন্দ। ওই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন রেণুকা, অশ্বিনী, নিত্যশীলা, সিবানেসান নামে চার পুলিশকর্মী। তাঁদের সঙ্গে ছিলেন এএসআই সুব্রামনিয়ানও। তিনি সেমবারানকোভিল থানায় কর্মরত। প্রতিযোগিতাটিও সেমবারানকোভিল এলাকাতেই আয়োজন করা হয়েছিল।

রবিবারের প্রতিযোগিতায় (Beauty Pageant) র‍্যাম্পে হেঁটেছিলেন তাঁরা। পরের দিনই এই ঘটনার বিষয়টি ভাইরাল হয়ে যায়। পুলিশ আধিকারিকরাও খেয়াল করেন, কর্মচারীরা র‍্যাম্পওয়াক করেছেন। তারপরেই নোটিস পাঠানো হয় পাঁচ পুলিশকর্মীকে। জানা গিয়েছে, নাগাপাট্টিনামের ডিএসপি ওই পাঁচজনকে বদলির নির্দেশ দিয়েছেন। তবে কেন বদলির আদেশ দেওয়া হল, সেই নিয়ে কোনও তথ্য দেওয়া হয়নি। কবে এবং কোথায় বদলি করা হচ্ছে, তাও জানা যায়নি।

প্রসঙ্গত, তামিলনাড়ু থেকেই আর প্রমীলা নামে এক মহিলা কনস্টেবল বিশ্বমঞ্চে দেশের নাম উজ্জ্বল করেছেন। ওয়ার্ল্ড পুলিশ অ্যান্ড ফায়ার গেমসে তিনটি সোনা এবং একটি রুপো পেয়েছেন তিনি। সারাদিন কঠোর পরিশ্রমের পরে রাতের বেলা প্র্যাকটিস করতেন তিনি। সাধনার পুরস্কার হিসাবে ১০০ এবং ৪০০ মিটার দৌড়ে সোনা পেয়েছেন তিনি। লং জাম্পেও প্রথম স্থান অধিকার করেছেন প্রমীলা। দু’শো মিটার দৌড়ে রুপো পেয়েছেন তিনি। কিন্তু সেই তামিলনাড়ুতেই র‍্যাম্পে হাঁটার কারণে বদলি হলেন মহিলা পুলিশ কর্মীরা। ফলে প্রশ্ন উঠছে, পেশার দোহাই দিয়ে কি ব্যক্তি স্বাধীনতাতে হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে?

সূত্র: প্রতিদিনের সংবাদ
এম ইউ/০৫ আগস্ট ২০২২

Back to top button