সংগীত

এবার বিশ্বের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সংবাদমাধ্যমে খবর হলেন হিরো আলম

ঢাকা, ০৪ আগস্ট – রবীন্দ্র সংগীত গেয়ে সমালোচনার মুখে পড়া আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) জিজ্ঞাসবাদের বিষয়টি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

বুধবার (৩ আগস্ট) এএফপিতে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি হিরো আলম রবীন্দ্র সংগীত ও নজরুল সংগীত গাইলে তা নিয়ে চারদিকে ওঠে সমালোচনার ঝড়। তিনি গান ‘বিকৃত’ করেছেন বলে বিভিন্নজনের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে হিরো আলমকে ডেকে নেয় ডিবির সাইবার ক্রাইম ইউনিট।

সেখানে তাকে রবীন্দ্র ও নজরুল সংগীত না গাওয়ার জন্য মুচলেকা নেওয়া হয়।

এ বিষয়ে হিরো আলম এএফপিকে বলেন, গত ২৭ জুলাই পুলিশ সকাল ৬টায় আমাকে তুলে নিয়ে সেখানে আট ঘণ্টা আটকে রাখে। তারা আমাকে জিজ্ঞেস করে আমি কেন রবীন্দ্র ও নজরুলের গান গাই। জিজ্ঞাসাবাদের সময় পুলিশ আমাকে মানসিকভাবে নির্যাতন করেছে। ক্লাসিক্যাল গান না গাইতে নিয়েছে মুচলেকা। তারা বলেছে, আমি নাকি দেখতে কুৎসিত। আমি নায়ক হই কী করে। তারা আমার নাম থেকে হিরো বাদ দিতে বলছে। এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান হারুন উর রশিদ এএফপিকে বলেন, আমরা তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ পেয়েছি। অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তি বলেছেন, এগুলো (হিরো আলমের গান) এ দেশের কৃষ্টি-সংস্কৃতির সঙ্গে মেলে না এবং বিকৃত। সাইবার ইউনিটে আসা এসব অভিযোগের যাচাই-বাছাই করার জন্য তাকে ডেকে আনা হয়। তার সঙ্গে আমাদের প্রায় দুই ঘণ্টা কথা হয়েছে। পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ছাড়া আলম তার ভিডিওতে অনুমতি ছাড়াই লালন গীতি এবং পুলিশের ইউনিফর্ম পরার জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন বলে ডিবির এ কর্মকর্তা বলেন।

নাম থেকে হিরো শব্দটি বাদ দেওয়ার বিষয়ে ঢাকার ডেপুটি পুলিশ কমিশনার ফারুক হোসেন বলেন, তাকে এমন কোনো কথা বলা হয়নি। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার জন্য এসব বলছেন।

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, হিরো আলমের সঙ্গে পুলিশের এমন আচরণে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অনেকে।

সাংবাদিক আদিত্য আরাফাত ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, আমি আপনার (হিরো আলম) গান বা আপনার অভিনয়ের ভক্ত নই। কিন্তু যদি আপনার কণ্ঠ রোধের চেষ্টা হয়, তাহলে আমি তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াব।

সানজিদা খাতুন রাখি লিখেছেন, ভেঙে পড়বেন না। আপনি একজন নায়ক। অন্যরা যাই বলুক না কেন, আপনি একজন সত্যিকারের নায়ক।

‘হিরো’ আলম বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন এবং ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করে ৬৩৮ ভোটও পেয়েছিলেন।

এএফপি জানায়, হিরো আলমের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ২০ লাখের বেশি ফলোয়ার, তার ইউটিউবে চ্যানেলেও রয়েছে ১৫ লাখের বেশি সাবস্ক্রাইবার।

হিরো শব্দের বিষয়ে আলম এএফপিকে বলেন, আমার নিজ জেলা বগুড়ায় জনপ্রিয় হওয়ার পর আমার মনে হয়েছিল আমি একজন নায়ক। সেখান থেকেই আমি হিরো নামটি ব্যবহার শুরু করি। তাই আমি আমার নাম থেকে হিরো শব্দটি বাদ দেব না।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে মনে হচ্ছে বাংলাদেশে স্বাধীনতাভাবে গানও গাইতে পারবো না।

এএফপির বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আরব নিউজ, ফ্রান্স২৪, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসসহ আরও বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হয়েছে।

এম ইউ/০৪ আগস্ট ২০২২

Back to top button