জাতীয়

এখন ক্রন্দন নয়, আমাদের জেগে উঠতে হবে

ঢাকা, ০৪ আগস্ট – বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ক্রন্দন নয়, রোদন নয় এখন জেগে উঠতে হবে এবং এই ফ্যাসিবাদী সরকারের হাত থেকে জাতিকে রক্ষা করতে হবে। তিনি বলেন, পনের বছর ধরে ক্ষমতায় টিকে থাকতে সহস্রাধিক নেতা-কর্মীদের হত্যা ও গুম করেছে বর্তমান সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় ভোলার ঘটনায় পুলিশের গুলিতে নিহত স্বেচ্ছাসেবক ও ছাত্রদল নেতা নূরে আলমের মৃত্যু।

বৃহস্পতিবার দুপুর একটায় পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ছাত্রদল নেতা নূরে আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তার জানাজা নামাজে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিদ্যুতের লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে সমাবেশ করার সময় পুলিশের গুলিতে আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন ভোলা জেলার ছাত্রদলের সভাপতি নূরে আলম।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এই ভয়াবহ কর্তৃত্ববাদী ও ফ্যাসিবাদী সরকারের জুলুম, নির্যাতনের হাত থেকে এই জাতিকে রক্ষা করতে হবে। আমাদের গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে, আমাদের গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে হবে। তার জন্য জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে আমাদের একটি গণতান্ত্রিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এই আন্দোলনের মাধ্যমে আমাদের ভাই, আমাদের সন্তান, পুত্র নূরে আলম ও রহিমের হত্যার প্রতিশোধ নেব ইনশাআল্লাহ।

নেতা-কর্মীদের শান্ত ও শৃঙ্খলা বজায় রেখে প্রতিবাদ ও আন্দোলনের করার আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এদিকে নূরে আলমের জানাজায় অংশগ্রহণের জন্য সকাল থেকেই বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে উপস্থিত হতে থাকে ছাত্রদলের কেন্দ্র ও ঢাকা মহানগর ইউনিটের নেতা-কর্মীরা। সহযোদ্ধাকে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে পুলিশ ও সরকার বিরোধী নানা স্লোগান দিতে থাকেন জমায়েত হওয়া এসব নেতা-কর্মী। খণ্ড-খণ্ড মিছিল নিয়ে জানাজায় অংশ নিতে আসেন স্বেচ্ছাসেবক দল, যুবদল, কৃষকদল ও বিএনপি মূলদলসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের কেন্দ্র ও ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন ইউনিটের নেতা-কর্মীরাও।

দলের সিনিয়র নেতা-কর্মীদের নির্দেশে ছাত্রদল এবার প্রতীকী প্রতিবাদ করেছে ৷ এর পরে আর একটা নেতা-কর্মী যদি এভাবে হত্যার শিকার হন। তাহলে ছাত্রদল চুপ থাকবে না বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল। তিনি বলেন, আর যদি কোন সহযোদ্ধা এভাবে জীবন হারায় তাহলে আর আমরা প্রতীকী প্রতিবাদ জানাবো না ৷ এবার আমরা সিনিয়র নেতাদের নির্দেশে এই প্রতীকী প্রতিবাদ করেছি।

আরও বক্তব্য রাখেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ ও নূরে আলমের বড় ভাই। তারা নূরে আলম হত্যার সুষ্টু বিচার দাবী করেন।

পুলিশের গুলিতে ভোলায় স্বেচ্চাসেবক দলের নেতা ও জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মৃত্যুর ঘটনায় তিন দিনের আলাদা আলাদা কর্মসূচির ঘোষণা দেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, এই ঘটনায় বিএনপি সারাদেশে শোক পালন করবে। এজন্য আগামী পাঁচ থেকে সাত তারিখ দেশের সকল বিএনপি কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন করে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে। ছয় আগস্ট ঢাকায় সমাবেশ করবে ছাত্রদল। এর পর দিন ঢাকায় সমাবেশ করবে কৃষকদল এবং সর্বশেষ ঢাকায় সামাবেশ করবে যুবদল।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/০৪ আগস্ট ২০২২

Back to top button