মধ্যপ্রাচ্য

ইরাকের পার্লামেন্ট ভবনে আবারও জনতার হামলা

বাগদাদ, ৩০ জুলাই – এক সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো রাজধানীর বাগদাদের গ্রিন জোনে অবস্থিত পার্লামেন্ট ভবনে হামলা চালিয়েছে ইরাকি বিক্ষোভকারীরা। প্রভাবশালী শিয়া নেতা মুকতাদা আল-সদরের সমর্থনে এ হামলা চালায় তারা।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, শনিবার (৩০ জুলাই) ইরাকি বিক্ষোভকারীরা নিরাপত্তা ব্যবস্থা সরিয়ে পার্লামেন্ট ভবনে ঢুকে পড়ে। বিক্ষোভকারীদের ঠেকাতে নিরাপত্তা বাহিনী কাঁদানে গ্যাস ও সাউন্ড বোমা ছোঁড়ে। বিক্ষোভকারীরা গ্রিন জোনের চারপাশ থেকে পার্লামেন্ট ভবনে এসে জড়ো হতে থাকে। অনেকে গ্রিন জোন ঘিরে থাকা বেশ কয়েকটি বড় কংক্রিটের প্রাচীর টপকাতে দড়ি ব্যবহার করেন।

এর আগে গত বুধবার বাগদাদের সংসদ ভবনে হামলা চালান মুক্তাদা আল-সদরের সমর্থকরা। ইরান-সমর্থিত বিভিন্ন দলের নেতাদের প্রধানমন্ত্রী পদে মনোনয়নের বিরুদ্ধে তারা প্রতিবাদ করে।

খবরে আরও বলা হয়, বিক্ষোভকারীরা পার্লামেন্ট ভবনে প্রবেশের পর ‘জনগণ আপনার সঙ্গে আছে সাইয়্যেদ মুক্তাদা’ বলে স্লোগান দিতে থাকে।

এ ঘটনার পর ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মোস্তফা আল-কাদিমির মিডিয়া অফিস রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের আহ্বান জানিয়ে একটি বিবৃতি জারি করেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, নিরাপত্তা বাহিনী বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দেওয়ার সময় বেশ কয়েকজন আহত হন। কিন্তু তারা সরে যাননি।

শনিবার আল-সুদানীকে প্রধানমন্ত্রী পদে ঘোষণা করতে পার্লামেন্টে ভোট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিক্ষোভের কারণে সেটি বাতিল হয়ে যায়।

হায়দার আল-লামি নামে বিক্ষোভে অংশ নেওয়া এক ইরাকি বলেন, আমরা বিপ্লবের জন্য এসেছি। কোনো দুর্নীতি চাই না আমরা। ২০০৩ সাল থেকে যারা ক্ষমতায়, আমরা চাই না তারা আবার ফিরুক। তারা আমাদের কেবল ক্ষতিই করেছে।

রাজনৈতিক অচলাবস্থার কারণে ইরাকে এখন পর্যন্ত নির্বাচিত সরকার গঠিত হয়নি। গত বছরের অক্টোবরে একবার নির্বাচন হয়। কিন্তু রাজনৈতিক দলগুলো কোনো নেতার বিষয়ে একমত না হওয়ায় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া একটি জায়গায় আটকে আছে। নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীই নেই দেশটিতে। যাকে নিয়ে সাধারণ ইরাকিদের বিক্ষোভ, গত নির্বাচনে সেই আল-সদরের জোটই সবচেয়ে বেশি আসন পেয়েছিল।

সূত্র: বাংলানিউজ
এম ইউ/৩০ জুলাই ২০২২

Back to top button