জাতীয়

আলেম-ওলামাদের মুক্তি ও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের দাবিতে বিক্ষোভ

ঢাকা, ২৯ জুলাই- বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি ও নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ ও আলেম-ওলামাদের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে ‘বাংলাদেশ মুসলিম সমাজ’।

শুক্রবার (২৯ জুলাই) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি করে সংগঠনটি।

এসময় বক্তারা বলেন, ‘সরকার উন্নয়ন জাহির করতে জনশুমারিতে জনসংখ্যা কম দেখিয়েছে। ১০ বছর আগেও জনসংখ্যা যা ছিল, এখনো সেটাই রয়েছে। এতদিন আমরা জেনে আসছি, জনসংখ্যা ১৮ কোটি, এখন শুনছি ১৬ কোটি। এত টাকা খরচ করে জনশুমারি করা হলো। অথচ তেল, গ্যাসসহ নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে। এতে নিম্নআয়ের মানুষের জীবনযাত্রা অসহনীয় হয়ে উঠেছে।’

তারা আরও বলেন, ‘সরকার নানা অজুহাতে আলেম-ওলামাদের মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে রাখা হয়েছে। অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবি জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে সব রাজবন্দিদেও মুক্তির দাবি করছি।’

এসময় সংগঠনটি তাদের ৮ দফা দাবি তুলে ধরে। সেগুলো হলো-

>> গুম, হত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতন বন্ধ করতে হবে। বাকস্বাধীনতা হরণকারী ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করতে হবে। সুশাসন, ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

>> গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানির দাম কমিয়ে দিতে হবে। নিত্যপণ্যের মূল্য জনগণের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখতে হবে।

>> নিরাপদ সড়ক, নৌ, আকাশপথের ব্যবস্থা করতে হবে। ব্যাংক, বিমা, শেয়ারবাজার, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, রেলখাতে অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে। নদী ভাঙন, ভূমিহীন, ভবঘুরে ভাসমানদের পুনর্বাসন করতে হবে।

>> পাট, তাঁত, গার্মেন্টসসহ বন্ধ কলকারখানা খুলে দিতে হবে। বেকারদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।

>> প্রবাসী শ্রমিকদের নিরাপত্তা ও চাকরির নিশ্চয়তা দিতে হবে। নিত্যনতুন শ্রমবাজার সৃষ্টি করতে হবে।

>> মাদক, জুয়ামুক্ত সমাজ ব্যবস্থা গঠন করতে হবে। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবর্তনে কূটনৈতিক তৎপরতা জোরদার করতে হবে।

>> সীমান্তে নির্যাতন-হত্যা বন্ধ করতে হবে। পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় করতে হবে।

>> রাজনৈতিক দল নিবন্ধন পদ্ধতি গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ, ১৯৭২ আইনে ৯০ বি ধারা সংযুক্ত কালো আইন বাতিল করতে হবে। দলীয় প্রতীকে স্থানীয় সরকার নির্বাচন পদ্ধতি বাতিল করতে হবে। নিরপেক্ষ ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

মুসলিম সমাজের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ মাসুদ হোসেনের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির মহাসচিব ডা. মুহাম্মদ মাছুম হোসাইন, ইসলামি ঐক্যজোটের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা শাখাওয়াত আমিন, গণ অধিকার পরিষদের যুগ্ম সচিব শামসুদ্দিন, আধিপত্য প্রতিরোধ আন্দোলনের নেতা ওবায়দুল হক প্রমুখ।

তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ
মুন/২৯ জুলাই

Back to top button