সিলেট

সিলেটে চালু হচ্ছে প্রথম সিনেপ্লেক্স

সিলেট, ২৪ জুলাই – একে একে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সবগুলো সিনেমা হল। প্রবাসীবহুল এলাকা, তবু এখানে নেই কোন সিনেপ্লেক্স। ফলে বড় ভালো পরিবেশে পর্দায় সিনেমা দেখার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সিলেটের মানুষ। এমন পরিস্থিতিতে সিলেটে প্রথমবারের চালু হতে যাচ্ছে সিনেপ্লেক্স।

আগামী ২৯ জুলাই ‘গ্র্যান্ড সিলেট সিনেপ্লেক্স’ নামের চলচ্চিত্র প্রদর্শন কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে। আলোচিত চলচ্চিত্র ‘হাওয়া’ প্রদর্শণের মাধ্যমে এই সিনেপ্লেক্সের উদ্বোধন হবে।

সিলেটের বিমানবন্দর সড়কের ‘গ্র্যান্ড সিলেট হোটেল এন্ড রিসোর্ট’-এ এই সিনেপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়েছে। গত ১৫ জুন পাঁচ তারকা এই হোটেলের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। এতোদিন সিনেপ্লেক্সটি পরীক্ষামূলকভাবে চালানো হয়েছিলো। এবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে।

একের পর এক সিনোম হল বন্ধ হয়ে যাওয়ার সময়ে এই সিনেপ্লেক্স চালু ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন চলচ্চিত্র সংশ্লিস্টরা। এর মাধ্যমে মানুষ হলে বসে ভালো ভালো ছবি দেখার সুযোগ পাবে বলে মনে করেন তারা।

‘গ্র্যান্ড সিলেট হোটেল এন্ড রিসোর্ট’-এরই ব্যবস্থাপনায় নির্মিত হয়েছে ‘গ্রান্ড সিলেট সিনেপ্লেক্স’। সংশ্লিস্টরা জানিয়েছেন, এই সিনেপ্লেক্সে একসাথে ১৭০ জন বসে সিনেমা দেখতে পারবেন। আপাতত টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪০০ ও ৫০০ টাকা। তবে প্রতিদিন কয়টি প্রদর্শনী হবে এবং তার সময়সূচী এখনও চ’ড়ান্ত করা হয়নি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিস্টরা।

গ্র্যান্ড সিলেট হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ফখর উদ্দিন রাজী বলেন, হোটেল নির্মাণের সময়ই আমরা সিনেপ্লেক্সটি তৈরি করি। আমাদের সাউন্ড সিস্টেম যুক্তরাজ্য থেকে আনা এবং দেশের মধ্যে সবচেয়ে ভালো কোয়ালিটির। এতোদিন পরীক্ষামূলকভাবে এটি চালু ছিলো। আমাদের অতিথিরা রাতের খাবারের সাথে এখানে ফ্রি সিনেমা দেখার সুযোগ পেতেন। তবে ২৯ জুলাই থেকে এটি বাণিজ্যিকভাবে চালু হতে যাচ্ছে।

এখানে দেশের ভালো ভালো ছবিগুলো প্রদর্শন করা হবে বলে জানান রাজী।

সিনেপ্লেক্স চালুর খবর জানাজানি হওয়ার পর মানুষের ইতিবাচক সাড়া পাচ্ছেন জানিয়ে রাজি বলেন, মানুষ খুব খুশি সিলেটে এরকম একটা কিছু হওয়ায়। সিলেটে তো এরকম পরিবেশে সিনেমা দেখার সুযোগ ছিলো না। তাই সবাই এটিকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

সিনেপ্লেক্স উদ্বোধনের দিন হাওয়া সিনোমার কলাকুশলীরাও উপস্থিত থাকতে পারেন বলে জানিয়েছেন রাজী।

এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে চলচ্চিত্র বিষয়ক সংগঠন ‘মুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটির সহ-সভাপতি স্থপতি রাজন দাশ বলেন, একে একে সিলেটের সবগুলো সিনেমা হল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। মানুষজন হলে গিয়ে সিনেমা দেখার সুযোগ পাচ্ছে না।

তিনি বলেন, সিনেমা হলে গিয়ে বড় পর্দায় দেখার জিনিস। মোবাইলে দেখে সিনেমার প্রকৃত স্বাদ পাওয়া যায় না। তাই সিলেটে একটি সিনেপ্লেক্স চালু হওয়া খুবই ভালো খবর। সরকারও চাচ্ছে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে সিনেপ্লেক্স নির্মাণ করতে।

রাজন বলেন, সিনেপ্লেক্সে হয়তো একটা শ্রেণীর মানুষ যেতে পারবেন। খরুচে হওয়ায় সকলে সেখানে যেতে পারবেন না। তবে মধ্যবিত্ত শ্রেণী অন্তত হলে বসে সিনেমা দেখার স্বাদ নিতে পারবেন। এতে এই শ্রেণীর তরুণদের বিনোদনের সুযোগ তৈরি হবে।

রাজনের আশা, অচীরেই সিনেপ্লেক্সগুলো আরও সহজলভ্য হয়ে উঠবে এবং সবশ্রেণীর মানুষ সিনেমা দেখার সুযোগ পাবে।

এন এ/ ২৪ জুলাই

Back to top button