কুমিল্লা

এবার এমপির কিলঘুষি খেয়ে হাসপাতালে উপজেলা চেয়ারম্যান

কুমিল্লা, ১৬ জুলাই – রাজশাহীতে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী বিরুদ্ধে একজন কলেজ অধ্যক্ষকে মারধরের অভিযোগ নিয়ে আলোচনার মধ্যেই আরেক সংসদ সদস্য ঢাকায় এক উপজেলা চেয়ারম্যানকে কিলঘুষি মেরে আলোচনা তৈরি করেছেন।

শনিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে জাতীয় সংসদ ভবনের এলডি হলে কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। সভার একপর্যায়ে কুমিল্লা-৪ (দেবীদ্বার) আসনের সংসদ সদস্য রাজি মোহাম্মদ ফখরুল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে কিলঘুষি মারেন বলে ওই সভায় অংশগ্রহণকারী দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের চারজন নেতা নিশ্চিত করেন।

রাজী মোহাম্মদ ফখরুল

এ খবর এলাকায় জানাজানি হলে সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুসারীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ায়। উপজেলা চেয়ারম্যানের ওপর হামলার প্রতিবাদে তাঁর অনুসারীরা সন্ধ্যায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বরকামতা ইউনিয়নের বাগুর, বরকামতা, কুমিল্লা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়কের জাফরগঞ্জ এবং দেবীদ্বার উপজেলা সদরে বিক্ষোভ করেন। তাঁরা সংসদ সদস্যের বিচার দাবি করেন। এর মধ্যে দেবীদ্বার পৌর এলাকায় বিক্ষোভের সময় উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুসারীদের সঙ্গে সংসদ সদস্যের অনুসারীদের মধে৵ পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় কয়েকজন আহত হন। দেবীদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কমল কৃষ্ণ ধর বলেন, ‘বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ হয়েছে বলে শুনেছি। পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

ঘটনা সম্পর্কে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রোশন আলী ও দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম সফিকুল আলম বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে জাতীয় সংসদ ভবনের এলডি হলে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সভার একপর্যায়ে উপজেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল মতিন সরকার এলাহাবাদ ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণা দেওয়ার দাবি তোলেন। এরপর সভাপতি হিসেবে সিরাজুল ইসলাম সরকার এবং সাধারণ সম্পাদক পদে আক্তারুজ্জামানের নাম ঘোষণা করা হয়। তখন সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল ‘কমিটি মানি না’ বলে ঘোষণা দেন। তখন দেবীদ্বার উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য দিলে সংসদ সদস্য তাঁর ওপর চড়াও হন, তাঁকে কিলঘুষি মারেন।

তবে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ম. রুহুল আমিন বলেন, দুজনের মধ্যে হাতাহাতি হয়েছে।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানার জন্য সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের মুঠোফোনে অনেকবার ফোন দেওয়া হয়। তিনি প্রতিবারই ফোন কেটে দেন। পরে সংসদ সদস্যের ঘনিষ্ঠজন দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম মনিরুজ্জামানের বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি দুঃখিত, কোনো কথা বলতে পারব না।’

সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। আবুল কালাম আজাদ কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। দুই নেতার মধ্যে অনেক দিন ধরে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে বলে স্থানীয় নেতারা জানান।

আহত আবুল কালাম আজাদ বলেন, ২০২১ সালে তিনি দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনে তাঁর বিরুদ্ধে ছিলেন সংসদ সদস্য রাজী। এরপর থেকে তাঁদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। তিনি বলেন, ‘আজ (শনিবার) দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভায় তিনি (সংসদ সদস্য) আমার ওপর প্রকাশ্যে হামলা করেন। আমাকে ঘুষি মারেন।’

সূত্র : প্রথম আলো
এন এ/ ১৬ জুলাই

Back to top button