জাতীয়

ঈদের চতুর্থদিনেও ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ

ঢাকা, ১৩ জুলাই – ঈদের আগে নানা ব্যস্ততার কারণে বাড়ি যেতে না পারলেও ঈদের চতুর্থদিনেও ঢাকা ছাড়ছেন অনেকে। কেউ পরিবার-পরিজনের সঙ্গে সময় কাটাতে আবার কেউ পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকা ছাড়ছেন। তাই ঈদের পরেও ট্রেনে বাড়ি যাচ্ছেন তারা। প্ল্যাটফর্মগুলোতে বাড়ি ফেরা মানুষের ভিড় ছিল গত দু’একদিন থেকে কিছুটা বেশি। তবে, কিছু কিছু ট্রেন বিলম্বে আসায় যাত্রীদের প্ল্যাটফর্মে অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

বুধবার (১৩ জুলাই) সকালে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে আজ ৪১ জোড়া ট্রেন আসা-যাওয়া করবে। ট্রেনগুলোতে ঢাকায় ফেরা যাত্রীর তুলনায় ছেড়ে যাওয়ার সংখ্যাই বেশি। সকাল ১১ টা পর্যন্ত ১৫টি ট্রেন ছেড়ে গেছে কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে। রেলস্টেশনে ঈদের সময় যাত্রীর চাপ বেশি থাকায় বাড়ি যাননি, অনেকে আবার পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এখন যাচ্ছেন এমন যাত্রীর চাপ রয়েছে।

রংপুর এক্সপ্রেসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন শেফালী বেগম। তিনি বলেন, তিনদিন ঘুরেও ঈদের আগে টিকিট পাইনি। তারপরও যানজটের কথা চিন্তা করে বাচ্চা নিয়ে বাসে যায়নি। কারণে বাসে খুব ভোগান্তি পোহাতে হয়।

বগুড়ার ট্রেনের জন্য অপেক্ষায় থাকা মো. রিপন বলেন, ঈদের আগে অনেক ঝামেলা হয় বাড়ি যেতে। তাই ঈদের পরে যাচ্ছি। এখন কোনো ঝামেলা নেই, কোনো ভোগান্তি যেন পোহাতে হবে না।

একতা এক্সপ্রেসে পঞ্চগড়ে যাবেন দোলালী বেগম। তিনি বলেন, রাস্তায় বাসে গেলে অনেক বড় জ্যামে পড়তে হয়। বাচ্চা নিয়ে গেলে তখন অনেক কষ্ট হয়। ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য অনেকবার চেষ্টা করেছি কিন্তু পাইনি। তাই আর বাড়িতে যাওয়া হয়নি। এখন বাড়ি যাওয়ার জন্য ট্রেনের অপেক্ষায় আছি।

ঘরেফেরা মানুষের অনেকে যাচ্ছেন পারিবারিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে রংপুরে শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছেন রোমান। তিনি বলেন, সাধারণত ঢাকাতেই ঈদ করি। ঈদের পর সবাই তো বেড়াতে যায় তাই আমরাও বেড়াতে যাচ্ছি। বাসে গেলে জ্যামে পড়তে হয়, আবার বাচ্চা নিয়ে যাওয়াও মুশকিল। তাই ট্রেনে যাচ্ছি।

টাঙ্গাইলে পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছেন তানজিলা রহমানসহ দুই পরিবারের ২১জন। তানজিলা রহমান বলেন, ঈদের পরে সাধারণত আত্মীয়দের বাড়িতে বেড়াতে যাই। এবার টাঙ্গাইলে আত্মীয়ের বাড়িতে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছি।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টার আফসার উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, সকাল থেকে ঢাকার বাইরে যাওয়ার যাত্রী স্বাভাবিক। ঢাকায় ফেরা যাত্রী বেড়েছে। আগামী শুক্রবার ও শনিবার (১৫ ও ১৬ জুলাই) ঢাকায় ফেরা যাত্রীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি হবে। তিনি বলেন, ঢাকামুখী মানুষের চাপ বেড়েছে, তবে ঈদের পরেও ঢাকার বাইরে যাওয়া মানুষের চাপ কিছুটা রয়েছে।

সিলেটের সঙ্গে রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়েছে জানিয়ে আফসার উদ্দিন বলেন, সিলেটের ওই ঘটনার কারণে মঙ্গলবার (১২ জুলাই) রাতে ট্রেনগুলো দেরিতে ঢাকায় পৌঁছালেও বুধবার সঠিক সময়ে ঢাকায় এসেছে। তবে কয়েকটি ট্রেন আসতে কিছুটা দেরি হয়েছে।

সূত্র : জাগো নিউজ
এম এস, ১৩ জুলাই

Back to top button