ঢালিউড

পিছিয়ে ‘দিন: দ্য ডে’, প্রাণ জুড়িয়েছে ‘পরাণ’

ঢাকা, ১১ জুলাই – পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে মুক্তি পেয়েছে তিনটি সিনেমা— ‘দিন: দ্য ডে’, ‘পরাণ’ এবং ‘সাইকো’। শুরু থেকেই নানা কারণে আলোচনায় ছিল সিনেমাগুলো।

হল সংখ্যার দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে ছিল অনন্ত জলিল অভিনীত ‘দিন: দ্য ডে’। শতাধিক সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে সিনেমাটি। সেই তুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে ‘পরাণ’ ও ‘সাইকো’। তবে মুক্তির পর বেশি প্রশংসা পাচ্ছে ‘পরাণ’।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অনেকেই সিনেমা দেখার পর তাদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। নেটিজেনদের বেশিরভাগই রায়হান রাফি পরিচালিত ‘পরাণ’ সিনেমার গল্প ও অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন। বিশেষ করে বিদ্যা সিনহা মিম ও শরীফুল রাজের অভিনয়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ তারা। ভাইরাল কিছু ভিডিওতে ‘পরাণ’ সিনেমা শেষে দর্শকদের তালি দিতেও দেখা গেছে।

অন্যদিকে, অনন্ত জলিল ও বর্ষা অভিনীত বিগ বাজেটের ‘দিন: দ্য ডে’ দেখে বেশিরভাগ দর্শকই হতাশা প্রকাশ করেছেন। মুক্তির আগে সিনেমার বাজেট, কলাকুশলী ও ইরানি পরিচালক— সব মিলিয়ে সিনেমা দর্শকের মাঝে কৌতূহল জাগিয়েছিল সিনেমাটি। কিন্তু মুক্তির পর সিনেমার ডাবিং, সংলাপ ও গল্প নিয়ে তাদের মুখে ছিল নিরাশার বাণী।

রেজুয়ানুল বিজয় নামে একজন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখেছেন, ‘যত গর্জে তত বর্ষে না। ১০০ কোটি বাজেটের ছবি বানিয়ে ব্যবসায়ী জলিল মুক্তির আগে যেভাবে টকশো গরম করেছে মুক্তির পর তেমনটা দর্শক পাচ্ছে ‘দিন দ্য ডে’ মনে হচ্ছে না। অল্প বাজেট, বড় কোনো তারকাহীন ছবি ‘পরাণ’ সে হিসেবে একটু এগিয়ে আছে। ছবিটা ৫০টা হল পেলে ইন্ডাস্ট্রির জন্যই ভালো হতো। প্রযোজক, হল মালিকরা হয়তো লাভবান হতেন। ‘সাইকো’ নিয়ে আলোচনা নেই।’

চিত্রনায়ক ওমর সানী সিনেমার নাম উল্লেখ না-করে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। সেখানে তার ইঙ্গিত খুব স্পষ্ট। সানী লিখেছেন, ‘অতিরিক্ত টাকা দিয়ে ছবি হয় না, আবার টাকা ছাড়া ছবি হয় না, ফুটাংগিরি করে লাভ নাই। ছবি চলে গল্পের জোরে মানানসই আর্টিস্ট গান এবং নতুনত্ব, আমাদের এরকম বহু ছবি আছে হিট বাম্পার হিট বেশি টাকা দিয়ে বানানো হয়নি, কিন্তু চলেছে আকাশ ছোঁয়া। কয়টা ছবির নাম শুনতে চান, রেজাল্ট বলে দিবে, টাকা দিয়ে বানাইছেন নাকি ডলার দিয়া, খালি আওয়াজ, ছবির সবচেয়ে বড় বিচারক দর্শক নীরব থাকেন।’

অপর দিকে, অনন্য মামুন পরিচালিত এবং পূজা চেরি ও রোশান অভিনীত ‘সাইকো’ সিনেমা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তেমন কোনো আলোচনা হচ্ছে না।

এম এস, ১১ জুলাই

Back to top button