সচেতনতা

দৈনিক কতটুকু গরুর মাংস খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো

কোরবানি ঈদে বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় মাংস একটু বেশিই খাওয়া হয়ে যায়। তবে লোভে পড়ে অতিরিক্ত মাংস খেলেও পরে কোষ্ঠকাঠিন্য, বদহজম, পেটে ব্যথাসহ বিভিন্ন সমস্যায় ভুগতে হয়। বিশেষ করে লাল মাংস অর্থাৎ গরু বা খাসির মাংস খাওয়ার সময় অবশ্যই সতর্ক থাকা জরুরি।

তবে সুস্থ থাকতে দৈনিক ঠিক কতটুকু মাংস খাওয়া উচিত তা অনেকেরই জানা নেই। ইনস্টিটিউট অব মেডিসিন ইউএসএ’র দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের দৈনিক প্রোটিনে চাহিদা ১ গ্রাম/কেজি বডি ওয়েট।

অর্থাৎ কারো ওজন যদি ৬০ কেজি হয়, আর সে যদি পরিশ্রমী না হন তাহলে তার দৈনিক প্রোটিনের দরকার পড়ে ৬০ গ্রাম। আর ভারি কাজ করলে আরও ৩০ গ্রাম বাড়বে, অর্থাৎ ৯০ গ্রাম প্রোটিন দরকার। এটা হচ্ছে স্বাভাবিক শারিরীক ক্রিয়া প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় প্রোটিন।

তবে একজন সুস্থ মানুষ কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ব্যতীত দৈনিক সর্বোচ্চ ২ গ্রাম/কেজি বডি ওয়েট করে প্রোটিন খেতে পারবে। সুতরাং একজন ৬০ কেজি ওজনের মানুষ দৈনিক সর্বোচ্চ ১২০ গ্রাম প্রোটিন খেতে পারবে কোনো পার্শপ্রতিক্রিয়া ব্যতীত।

এই পরিমাণের চেয়ে বেশি খেলে ডায়রিয়া কিংবা কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দিতে পারে। প্রোটিনের অন্যতম উপাদান হলো মাংস, মাছ, ডিম ইত্যাদি। সেক্ষেত্রে শুধু মাংসই নয় বরং এ পরিমাণের বেশি মাছ বা ডিম খেলেও শারীরিক বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে।

১২০ গ্রাম প্রোটিন খেতে পারলে কত গ্রাম মাংস খাওয়া যাবে?

অনেকেরই ধারণা আছে যে, এক গ্রাম মাংস মানেই এক গ্রাম প্রোটিন। এটি কিন্তু ভুল ধারণা। আমেরিকার ইনস্টিটিউট অব মেডিসিনের তথ্য অনুযায়ী, ১০০ গ্রাম রান্না করা মাংসে ২৬ গ্রাম প্রোটিন, ১০ গ্রাম ফ্যাট, ৬১-৬৩ গ্রাম পানি থাকে।

এর অর্থ হলো, মাংস থেকে ২৬ গ্রাম প্রোটিন পেতে হলে ১০০ গ্রাম মাংসের প্রয়োজন। তথা ১ গ্রাম প্রোটিনের জন্য প্রায় ৪ গ্রাম মাংসে দরকার। একজন ৬০ কেজি ওজনের সুস্থ লাইট ওয়ার্কার মানুষের দৈনিক প্রোটিন চাহিদা হচ্ছে ৬০ গ্রাম।

সুতরাং তিনি স্বাভাবিক মাংস থেকে সেই পরিমাণ প্রোটিন নিতে চাইলে ৬০x৪=২৪০ গ্রাম মাংস খেতে পারবেন। তবে তা হতে হবে তিন বেলায় ভাগ করে অল্প অল্প করে। অন্যথায় কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দিবে। আবার অনেকের ক্ষেত্রে ২০০ গ্রামের বেশি মাংস খেলেও কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দিতে পারে।

তাই ঈদের এ সময় অতিরিক্ত মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। আর অবশ্যই দৈনিক পরিমাণ মেপে তবেই মাংস খান। তাহলেই সুস্থ থাকতে পারবেন।

এম এস, ১১ জুলাই

Back to top button