ইউরোপ

না জানিয়ে সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন সেনা কর্মকর্তারা, ক্ষুব্ধ জেলেনস্কি

কিয়েভ, ০৬ জুলাই – প্রেসিডেন্টকে না জানিয়ে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীতে সাধারণ মানুষের যোগদান ও চলাচল সম্পর্কে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ায় সেনা কর্মকর্তাদের তিরস্কার করলেন ভলোদিমির জেলেনস্কি। জানিয়ে দিয়েছেন, তাকে না জানিয়ে ভবিষ্যতে যেন আর কোনো সিদ্ধান্ত না নেওয়া হয়।

গত ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়ার আক্রমণের পরপরই ইউক্রেনীয় সরকার সিদ্ধান্ত নেয়, ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী সব পুরুষকে প্রয়োজনে সেনাবাহিনীতে কাজ করতে হবে। কিছু বিশেষ পেশার সঙ্গে যুক্ত নারীদেরও সেনায় নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।

এর মধ্যেই গত মঙ্গলবার (৫ জুলাই) ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর জেনারেল স্টাফ ঘোষণা দেন, সামরিক বাহিনীতে যোগদানের যোগ্য লোকজন বিনাঅনুমতিতে নিজেদের বাসস্থান ছেড়ে অন্যত্র যেতে পারবেন না।

ফেসবুকের এক পোস্টে তিনি বলেন, নিয়োগপ্রাপ্ত, সংরক্ষিত ও সামরিক বাহিনীতে যোগদানের যোগ্য অন্যান্য লোকজন তাদের অঞ্চল ছেড়ে বের হতে চাইলে সামরিক আঞ্চলিক নিয়োগ এবং সামাজিক সহায়তা কেন্দ্র থেকে অনুমতি নিতে হবে।

যুদ্ধের সময় সামরিক কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তগুলো নিয়ে ইউক্রেনে খুব একটা সমালোচনা না হলেও মঙ্গলবারের এ ঘোষণায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। পরে এক ভিডিওবার্তায় ওই সিদ্ধান্তের জন্য সামরিক কর্মকর্তাদের তিরস্কার করেছেন খোদ প্রেসিডেন্টই। তিনি বলেন, আমি দেখছি, এ ধরনের সিদ্ধান্তের ভিন্ন ভিন্ন মূল্যায়ন হচ্ছে। সমাজে ভুল বোঝাবুঝি, এমনকি ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।

এদিন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট প্রতিশ্রুতি দেন, শিগগির বিষয়টি দেখবেন। সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরবর্তী বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবেন এবং মানুষের ক্ষোভ যেন না থাকে সেই ব্যবস্থা করবেন।

ভাষণে জেলেনস্কি বলেন, আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, এই সিদ্ধান্তের ব্যাখ্যা নেবো। আর সেনা কর্মকর্তাদের অনুরোধ করছি, আমাকে না জানিয়ে তারা যেন আর কোনো সিদ্ধান্ত না নেন।

সূত্র: জাগো নিউজ
এম ইউ/০৬ জুলাই ২০২২

Back to top button