মধ্যপ্রাচ্য

এবার সংকটের মুখে লেবানন, খাবার পাচ্ছে না ৯০ ভাগ পরিবার

বৈরুত, ০৪ জুলাই – ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের প্রেক্ষিতে এবার সংকটের মুখে পড়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ লেবানন। জাতিসংঘ সতর্ক করে বলেছে, দেশটিতে লাখ লাখ মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এছাড়া খাদ্য, ওষুধ, জ্বালানিসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় চাহিদা পূরণ করতে পারছে না লেবানন। আজ সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, দাম বেড়ে যাওয়ায় লেবাননের শতকরা ৯০ ভাগ পরিবার তাদের চাহিদা মতো খাবার পাচ্ছে না। তারা খাবারের মান ও পরিমাণ কমাতে বাধ্য হচ্ছে। এছাড়া অপরিশোধিত তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় দেশটিতে পরিস্থিতি আরো সংকটাপন্ন হওয়ার আশঙ্কা করছে জাতিসংঘ, যা খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা, অপুষ্টি ও ক্ষুধা আরো বাড়িয়ে তুলতে পারে।

এক জরিপে দেখা গেছে, লেবাননে তরুণদের বেকারত্বের হার প্রায় ৫০ শতাংশ। শ্রমশক্তির প্রায় এক-তৃতীয়াংশই বেকার। লেবাননে নিয়োজিত জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী নাজাত রোচদি জানান, প্রায় ২২ লাখ লেবানিজ, ৮৬ হাজার অভিবাসী এবং দুই লাখ ফিলিস্তিনি শরণার্থীর জরুরি সহায়তা প্রয়োজন, যা গত বছরের তুলনায় ৪৬% বেশি।

তিনি বলেন, লেবাননের আর্থিক স্থিতিশীলতার অবস্থা ভালো নয়। বিশ্বব্যাংকের প্রকল্প অনুযায়ী, লেবাননের মোট দেশজ উৎপাদন এ বছর আরও ৬.৫ শতাংশ কমেছে। এতে মুদ্রাস্ফীতি নতুন করে বিধ্বংসী উচ্চতায় চলে যেতে পারে।

তিনি আরও বলেন, ইউক্রেন সংকটের কারণে লেবাননে আর্থ-সামাজিক মন্দা দেখা দিয়েছে। গমের মজুদ হ্রাস এবং জ্বালানি পণ্যের ক্রমবর্ধমান দামের কারণে রুটির দাম ব্যাপক বেড়েছে যা দেশটির খাদ্য নিরাপত্তা হুমকির মুখে ফেলেছে। লেবাননের স্বাস্থ্য খাতও ধসে পড়ার দ্বারপ্রান্তে রয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন জাতিসংঘের এই আবাসিক সমন্বয়কারী। ইতোমধ্যে দেশটির হাসপাতালগুলো চিকিৎসা সামগ্রীর তীব্র ঘাটতি ও বিদ্যুৎ সংকটে ভুগছে।

এ ছাড়া তীব্র বিদ্যুৎ সংকটের কারণে লেবাননের প্রায় ৪০ লাখ মানুষের সুপেয় পানি থেকে বঞ্চিত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। এসব সংকট সারা দেশে সবাইকে বিশেষ করে নারীদের বহুমুখী বিপর্যয়ের মধ্যে ফেলছে। নাজাত রোচদি জানান, লেবানিজ তরুণরা নিজেদের জন্য কোনো ভবিষ্যৎ দেখতে পাচ্ছে না। তারা নিরাশ হয়ে লেবানন ছেড়ে চলে যাচ্ছে, যা দেশটিকে তার অর্থনীতি ও উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষ জনশক্তি থেকে বঞ্চিত করবে।

সূত্র : আমাদের সময়
এম এস, ০৪ জুলাই

Back to top button