জাতীয়

২৫ সেপ্টেম্বরকে ‘বাংলাদেশি অভিবাসী দিবস’ ঘোষণার প্রস্তাব গৃহীত করল নিউইয়র্ক সিনেট

ঢাকা, ২৯ জুন – চলতি বছরের ২৫ সেপ্টেম্বরকে ‘বাংলাদেশি অভিবাসী দিবস’ ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের আইনসভার উচ্চকক্ষ সিনেট। ৩ জুন সিনেটে এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে।

ওই প্রস্তাবে নিউইয়র্কপ্রবাসী বাংলাদেশিদের ভূমিকার প্রশংসা করা হয়েছে। প্রস্তাবে নিউইয়র্কে বাংলাদেশি-আমেরিকানদের অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ২০২২ সালের ২৫ সেপ্টেম্বরকে ‘বাংলাদেশি অভিবাসী দিবস’ ঘোষণার জন্য গভর্নর ক্যাথি হোচুলের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সিনেটে গৃহীত প্রস্তাবে বলা হয়েছে, এমন সময় এ প্রস্তাব গৃহীত হলো, যখন যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ সম্পর্কের ৫০ বছর উদ্‌যাপন করা হচ্ছে। বাংলাদেশি অভিবাসীরা উনিশ শতকের দিকে তাঁদের পরিবার ও স্বজনদের ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান।

যুক্তরাষ্ট্রে আসা বাংলাদেশি অভিবাসীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যায় নিউইয়র্কে বসবাস করেন। এখানে বাংলাদেশিদের সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে হলে তাঁদের মুদিদোকান, কাপড়ের দোকান ও রেস্তোরাঁগুলোতে যেতে হবে। নিউইয়র্কের পার্শ্ববর্তী অঙ্গরাজ্যগুলোতেও বহু বাংলাদেশি অভিবাসী বসবাস করেন। প্রবাসীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ভূমিকার জন্য নিউইয়র্কের সাংস্কৃতিক সংগঠন মুক্তধারা ও এর প্রধান নির্বাহী বিশ্বজিৎ সাহার নাম উল্লেখ করা হয়েছে প্রস্তাবে।

প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ১৯৭১ সালে স্বাধীন হয় বাংলাদেশ। ১৯৭৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশিদের জন্য একটি ঐতিহাসিক দিন। কারণ, ওই দিন জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলায় তাঁর ভাষণটি দিয়েছিলেন।

বর্তমানে নিউইয়র্কে থাকা বাংলাদেশি অভিবাসীরা বেশ উন্নত জীবন যাপন করছেন। এখন কোনো বাংলাদেশি বিদেশে নতুন জীবন শুরু করতে চাইলে তাঁর পছন্দের তালিকার শীর্ষে থাকে নিউইয়র্ক।

নিউইয়র্কেও বাংলাদেশি অভিবাসীদের জন্য নানা রকমের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। নিউইয়র্কে নিযুক্ত বাংলাদেশি কনস্যুলেট জেনারেল নতুন আসা প্রবাসী বাংলাদেশিদের খুব দ্রুত সেবা দিয়ে থাকেন।

প্রস্তাবে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় মুক্তিকামী বাংলাদেশিদের অবদানের প্রশংসা করা হয়। একই সঙ্গে নিউইয়র্কসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা বাংলাদেশি প্রবাসীদের অর্জনের প্রশংসা করা হয়।

সূত্র : প্রথম আলো
এম এস, ২৯ জুন

Back to top button