ক্রিকেট

ক্রিকেটারদের খুব বেশি দোষ দেখেন না সাকিব

সেন্ট লুসিয়া, ২৮ জুন – প্রায়ই বলা হয়, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের টেস্টের প্রতি মনোযোগ নেই। বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে বেশি জোর দেন- এমন অভিযোগ শোনা যায় হরহামেশা। এই অভিযোগ পুরোপুরি উড়িয়ে দেননি বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

তবে তিনি ব্যাট ধরেছেন খেলোয়াড়দের পক্ষে। তার মতে, টেস্টে আগ্রহ না থাকা বা কম থাকার দায় শুধুমাত্র খেলোয়াড়দের একার নয়। বরং এ প্রসঙ্গে পাল্টা প্রশ্নে তিনি জিজ্ঞেস করেছেন, বাংলাদেশে টেস্ট ক্রিকেট মূলত দেখেন কতজন মানুষ?

সেইন্ট লুসিয়া টেস্টে ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে সাকিব কথা বলেছেন দেশের টেস্ট সংস্কৃতি নিয়েও। তার মতে, দেশের ক্রিকেট সিস্টেমেই টেস্ট ফরম্যাটটা অতটা আলোচিত নয়। যে কারণে টেস্টে বেশিরভাগ সময়ই ফাঁকা থাকে পুরো গ্যালারি।

তার ভাষ্য, ‘এখানে খেলোয়াড়দের খুব বেশি দোষ দেওয়া ঠিক হবে না। শুধু খেলোয়াড়দের দোষ দিলে হবে না। আমাদের দেশের সিস্টেমটাই এমন। আপনি কবে দেখছেন বাংলাদেশে ৩০ হাজার দর্শক টেস্ট ম্যাচ দেখছে বা ২৫ হাজার দর্শক মাঠে এসেছে টেস্ট দেখতে?’

সদ্য সমাপ্ত ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড টেস্ট সিরিজের প্রতিটি ম্যাচেই দেখা গেছে ভরা গ্যালারি। সেই উদাহরণ টেনে সাকিব আরও বলেন, ‘ইংল্যান্ডে তো প্রতি ম্যাচে (টেস্ট) এরকম দর্শক থাকে। টেস্টের সংস্কৃতিটাই আমাদের দেশে ছিল না কখনো, এখনো নেই।’

এখন নেই দেখে যে কখনও হবে না তা বলছেন না সাকিব, ‘টেস্ট সংস্কৃতি নেই বলে যে হবে না, সেটা কিন্তু নয়। এই জিনিসটা পরিবর্তন করাই আমাদের বড় দায়িত্ব। সবাই মিলে যদি পরিকল্পনা করে আগানো যায়, হয়তো কিছু সম্ভব হবে। নইলে আসলে খুব বেশি দূর আগানো সম্ভব হবে না। কারণ আমাদের টেস্টের সংস্কৃতিই নেই।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমরা যে টেস্ট ক্রিকেটকে খুব বেশি মূল্যায়ন করি, তা নয়। হ্যাঁ, হতে পারে আমরা ফলাফল ভালো করিনি, এ কারণে মূল্যায়নও হয়নি। তবে একটার সঙ্গে আরেকটার সম্পর্ক আছে। একটার সঙ্গে আরেকটাকে সম্পৃক্ত করতে হবে। তাহলেই ভালো কিছু সম্ভব।’

সূত্র : জাগো নিউজ
এম এস, ২৮ জুন

Back to top button