জাতীয়

ঈদযাত্রা: ৭ জুলাইয়ের বাস টিকিট শেষ প্রথম দিনই

ঢাকা, ২৪ জুন – আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করেছে বাস কোম্পানিগুলো। টিকিট বিক্রির প্রথম দিন অগ্রিম টিকিট কাটতে আসা যাত্রীদের খুব একটা ভিড় লক্ষ করা যায়নি কাউন্টারগুলোতে।

তবে শুক্রবার কাউন্টারগুলোতে টিকিট প্রত্যাশীদের তেমন ভিড় দেখা না গেলেও ৭ জুলাইয়ের টিকিট প্রথম দিনই শেষ হয়ে গেছে বলে জানান কাউন্টারকর্মীরা। আগামী ১০ জুলাই ঈদ হবে ধরে নিয়ে ঈদযাত্রার বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রি করা হচ্ছে। তার আগের দুদিন পড়েছে শুক্র ও শনিবার। ফলে ঈদের আগে শেষ কর্মদিবস থাকছে ৭ জুলাই, সেদিন বিকেল থেকেই যাত্রীদের চাপ শুরু হবে।

কল্যাণপুরের টিকিটের জন্য আসা এক ব্যক্তি জানান, নওগাঁয় ৭ জুলাই রাতে যাওয়ার টিকেট কিনতে চেয়েছিলাম কিন্তু কাউন্টার বা অনলাইনে টিকেট পাননি।

জয়পুরহাটগামী বাসের টিকেট নিতে আসা একজন জানান, ৭ জুলাইয়ের টিকেট কিনতে চাইলেও তাকে কাউন্টার থেকে বলে দেয়া হয়েছে টিকিট নেই। তিনি আরও বলেন, প্রথমদিনই সব টিকেট শেষ হয়ে যাবে এটা বিশ্বাস করার মত না। টিকেট আটকে রাখে, পরে ঈদের আগে বেশি দামে বিক্রি করে।

এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে শ্যামলী পরিবহনের কাউন্টার ব্যবস্থাপক সালাম বলেন, টিকেট নেয়ার জন্য যাত্রীদের ভিড় ছিল ভোরবেলায়। সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে ৭ ও ৮ তারিখের টিকেট। এ কারণে ওই দুই দিনের টিকেট শেষ হয়ে গেছে। তবে এখনও ৬ তারিখের টিকেট আছে।

অনলাইনেও ঈদযাত্রায় বাসের টিকিক বিক্রি হচ্ছে। ভিড় এড়াতে এসআর পরিবহনে কাউন্টারে কোন টিকিট বিক্রি হচ্ছে না। তারা সব বিক্রি সারছেন অনলাইনে। টিকেট প্রত্যাশীরা কাউন্টারে এসে ঘুরে যাচ্ছেন।

এসআর পরিবহনের কাউন্টারের ব্যবস্থাপক রাজিব আহমেদ জানান, খুব ভিড় হয় যা সামলানো কঠিন। তাছাড়া নানা ঝামেলা হয়। এজন্য অনলাইনে দিয়ে দেয়া হয়েছে।

কেউ কেউ জানালেন অনলাইনেও টিকিট পাচ্ছেন না বলে। একজন বলেন, সহজ ডটকমের ওয়েবসাইটে গিয়ে অনেকক্ষণ ধরে চেষ্টা করছি। কিন্তু কোনো টিকেট পাচ্ছি না।

হানিফ পরিবহনের মহাব্যবস্থাপক মোশাররফ হোসেন বলেন, গাবতলীর হানিফ পরিবহনের টিকেট কাউন্টারের সামনে টিকেট প্রত্যাশীদের ভিড় তেমন দেখা যায়নি। রোজার ঈদের সময়ও তাদের টিকেটের চাহিদা কম ছিল। এবারও তেমন ভিড় দেখা যায়নি। টিকেট বিক্রির প্রথম দিন যে রকম আশা করেছিলাম সে রকম যাত্রী আসেনি। আজ শুধু ৭ তারিখ রাতের টিকেটের চাহিদা ছিল, দিনের টিকেটও বিক্রি হয়েছে।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২৪ জুন

Back to top button