জাতীয়

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যাবে না বিএনপি: ফখরুল

ঢাকা, ২২ জুন – পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিএনপি যাবে না বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বুধবার বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

এর আগে পদ্মাসেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিএনপিকে আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানায় সরকার। বেলা ১১টার দিকে সেতু বিভাগের উপ সচিব দুলাল চন্দ্র সূত্রধর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর কাছে আমন্ত্রণপত্র পৌঁছে দেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ মোট ৭ জনকে আমন্ত্রণ জাননো হয়। আমন্ত্রণ পাওয়া অন্যরা হলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমেদ।

এক প্রশ্নের উত্তরে মির্জা ফখরুল বলেন, যারা মানুষ হত্যা করে, যারা তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে চুবিয়ে মারতে চায়, যারা বিশিষ্টজনদের চুবিয়ে মারতে চায়, তাদের আমন্ত্রণে বিএনপির নেতাকর্মী কখনোই যেতে পারে না।

বিএনপি ক্ষমতায় গেলে প্রধানমন্ত্রী কে হবেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, আমাদের কথা পরিস্কার। হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে নির্বাচনই হবে না। আওয়ামী লীগকে সরে যেতে হবে। নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরেপক্ষ সরকার হলেই নির্বাচন হবে। তখনই প্রশ্ন আসবে আমাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন।

‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী হবেন দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তার অনুপস্থিতিতে আমাদের নেতা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রধানমন্ত্রী হবেন। আমাদের নেতৃত্বের সমস্যা নাই। বিএনপিতে কোনো নেতৃত্বের সংকট নেই।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তাদের (আওয়ামী লীগের) সংকট আছে। একমাত্র হাসিনা ছাড়া আর কেউ নেই। তিনি চলে গেলে নেতৃত্ব নিয়ে কী যুদ্ধ হয় তা তারাই বলতে পারবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদার প্রমুখ।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২২ জুন

Back to top button