ফুটবল

এমবাপ্পে-পিএসজির আলোচিত চুক্তি, মুখ খুললেন খেলাইফি

গত মাসেই কিলিয়ান এমবাপ্পেকে নিয়ে সব নাটকীয়তার অবসান ঘটেছে। ২০২৫ সাল পর্যন্ত পিএসজিতে থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। কিন্তু এর ভেতরে অনেক কিছুই ঘটেছে, যা নিয়ে মিডিয়ায় নানা আলোচনা হয়েছে এবং এখনো হচ্ছে। ফরাসি স্ট্রাইকারকে দলে টানতে না পেরে সরাসরি হতাশা প্রকাশ করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। তবে এতদিন পিএসজির পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি। অবশেষে মুখ খুললেন ক্লাবটির কাতারি মালিক নাসের আল খেলাইফি।

এতদিন ধরে আলোচনায় ছিল, বিশাল অঙ্কের অর্থের লোভে পিএসজিতে থেকে গেছেন এমবাপ্পে। যদি এমনটা না হতো তাহলে কেন স্বপ্নের ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে যেতে চাননি। সবার যুক্তি মূলত এটাই। তবে পিএসজি মালিক বলছেন, অর্থের জন্য নতুন চুক্তি করেননি এমবাপ্পে। বরং অর্থের দিক দিয়ে রিয়ালের অফার সবচেয়ে ভালো ছিল।

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নাসের আল খেলাইফি বলেছেন, ‘রিয়াল মাদ্রিদের জন্য আমার যথেষ্ট সম্মান রয়েছে। তারা অনেক বড় ক্লাব। তবে এটাও স্পষ্ট করতে চাই, প্রথমত, অর্থের জন্য এমবাপ্পে চুক্তি বাড়ায়নি। এদিক দিয়ে আমাদের চেয়েও রিয়ালের অফার ভালো ছিল। সে আমাদের খেলোয়াড় এবং মাদ্রিদের ইংল্যান্ডের আরও ক্লাব ছিল, যারা তাকে চেয়েছে। এবং কিলিয়ান পিএসজিকে বেছে নিয়েছে। চুক্তি স্বাক্ষরের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত অর্থ নিয়ে সে কিংবা তার পরিবারের সঙ্গে আমাদের কোনো কথা হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘কিলিয়ান এসব কিছুর উর্ধ্বে, প্রকল্প, ফুটবল এবং খেলা। সে প্যারিসিয়ান, একজন ফরাসি এবং তার এখানে থাকতে চাওয়ার কারণ, সে নিজের শহর ও দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে চায়। তার সম্পর্কে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে যা কিছু বলা হচ্ছে তা উচিত নয়। এমবাপ্পের জন্য অর্থ গুরুত্বপূর্ণ নয়। সে জিততে এবং প্রকল্পের অংশ হতে চায়।’

রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্ট পেরেজের মতে, পিএসজির সঙ্গে চুক্তি নবায়নের দশ দিন আগে রিয়ালে যাবেন না বলে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেন এমবাপ্পে। এ প্রসঙ্গে পিএসজি মালিক বলেন, ‘আমি জানি না মাদ্রিদ কি বলেছে। আমি ১৮ মাস আগে থেকেই জানি, সে প্যারিসে থাকছে। আমি শুনেছি মাদ্রিদ বলেছে, কিলিয়ান তাদের হয়ে খেলতে চায়। কিন্তু এটা সত্য নয়। আমরা এখন মাদ্রিদের সর্বশেষ অফার নিয়ে কথা বলছি। কিন্তু গত গ্রীষ্মেই তারা ১৭০ ও ১৮০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব করেছিল। সঙ্গে বেতন ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধাসহ অফারটি আমাদের চেয়েও অনেক ভালো ছিল। ওই অফার ফিরিয়ে দেওয়ার পর তারা আমাকে বলেছিল, আমি পাগল। কারণ, এই গ্রীষ্মে সে ফ্রিতে চলে যেতে পারতো। কিন্তু আমি নিশ্চিত ছিলাম কিলিয়ান থেকে যাবে। আমি তাকে এবং তার পরিবারকে ভালোভাবে জানি। আমি জানি সে কি চায়।’

সূত্র : ইত্তেফাক
এম এস, ২২ জুন

Back to top button