ঢালিউড

নিজেকে সৌভাগ্যবানই মনে হচ্ছে : অর্ষা

ঢাকা, ১৮ জুন – শতভাগ আঞ্চলিক ভাষার গল্পে নির্মিত হয়েছে সিনেমা ‘সাহস’। এটি নির্মাণ করেছেন সাজ্জাদ খান। সিনেমাটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন নন্দিত তারকা নাজিয়া হক অর্ষা। আজ বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সন্ধ্যায় ওটিটি প্লাটফর্ম চরকিতে মুক্তি পেতে যাচ্ছে সিনেমাটি।

গল্পে দেখা যাবে, বাগেরহাটের দুই পাশে নদী আর পেছনে জঙ্গল। জীবন এখানে প্রকৃতির মতই খেয়ালী, ঝড়-ঝঞ্ঝা অবিরাম। এরই মাঝে ফুল হয়ে ফুটতে চায় নীলা-রায়হানের প্রেম। কিন্তু আচমকা ঝড়ে লন্ডভন্ড হয় সব। ঘুরে যায় জীবনের কম্পাস। তবুও দমে না তারা। বুকে সাহস নিয়ে ঘুরে দাঁড়ায়, লড়াই করে প্রাণপণ।

নাজিয়া হক অর্ষা বলেন, ‘এরকম গল্পের সঙ্গে কাজ করতে পারলে আমার বরাবরই ভালো লাগে। কারণ সমসাময়িক যে ধরনের গল্প হয় তা থেকে আলাদা। একটা লোকাল অঞ্চলের চিন্তা-চেতনা, সংস্কৃতির সাথে মিল রেখে একটা সিনেমা খুব রেয়ারলি হয়। এরকম একটা কাজের সাথে থাকতে পেরে নিজে সৌভাগ্যবানই মনে হচ্ছে।’

গল্পের রায়হান চরিত্র দেখা যাবে মোস্তাফিজ নুর ইমরানকে। তার বেড়ে ওঠা, শৈশব, কৈশোর সব কেটেছে বাগেরহাটেই। সিনেমটা নিয়ে তার আবেগের জায়গাটা একটু ভিন্ন। তিনি বলেন, ‘বাগেরহাট আমার নিজের শহর। অভিনেতা হিসেবে যদি বলি, এই শহরের হেঁটে-চলে অভিনয় করাটা আমার জন্য খুব উপভোগ্য ছিল। বাগেরহাটের মানুষ কখনও শুটিং দেখেনি, তার উপর আবার সিনেমা। গোটা শহরের মানুষ শুটিং দেখে খুব মজা পেয়েছে।

‘পুরা কাজটা করার সময় আমার পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, বাগেরহাটের রেপাটরি থিয়েটারের অনেক সহযোগিতা পেয়েছি। এই মানুষগুলার সহযোগিতার কারণে কাজটা করার সাহস পেয়েছি। সেই সাথে সিনেমার পরিচালক, সহঅভিনেত্রীরা ছিলেন দুর্দান্ত।’- যোগ করেন তিনি।

এম এস, ১৮ জুন

Back to top button