জাতীয়

ইনসিনারেটর প্ল্যান্ট স্থাপনে অর্থায়ন করতে চায় জাইকা

ঢাকা, ১২ জুন – বাংলাদেশের সব সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত হাসপাতাল থেকে উৎপন্ন মেডিক্যাল বর্জ্য পোড়ানোর জন্য ইনসিনারেটর প্ল্যান্ট স্থাপনে অর্থায়নের আগ্রহ প্রকাশ করেছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা)। চট্টগ্রাম ওয়াসায় পিপিপি মডেলে নতুন একটি ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপনে বিনিয়োগ করতেও আগ্রহী সংস্থাটি।

রোববার (১২ জুন) সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে এসে জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি এ আগ্রহের কথা জানান।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী জাপানের অর্থায়নে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট এবং ইনসিনারেশন প্ল্যান্ট স্থাপনে বিনিয়োগের আগ্রহকে স্বাগত জানান। মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে তাদের আগ্রহের ব্যাপারে প্রস্তাব দিলে তা যাচাই-বাছাই করে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে রাষ্ট্রদূতকে জানান মন্ত্রী।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘মেডিক্যাল বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সরকারি-বেসরকারি মেডিক্যাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোকে মেডিক্যাল বর্জ্য যত্রতত্র না ফেলে জীবাণুমুক্ত করে নির্ধারিত ব্যাগে ভরে বর্জ্য সংগ্রহকারীদেরকে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সরকার।’

তিনি আরও বলেন, ‘মেডিক্যাল বর্জ্যের পাশাপাশি শিল্প বর্জ্য ও ইলেকট্রনিক বর্জ্য সম্পর্কে জনসাধারণকে সচেতন হতে হবে। পরিবেশসম্মত উপায়ে এসব বর্জ্য ডিসপোজাল করতে পারলে পরিবেশদূষণ রোধ করা সম্ভব হবে।’

সাক্ষাৎকালে জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেসব পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন, সেগুলো বাস্তবায়িত হলে বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে অনেক শক্তিশালী হবে। জাপান বাংলাদেশের উন্নয়নে অনেক সহযোগিতা করেছে। সেই সহযোগিতা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে। জাপানের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। দীর্ঘ পথপরিক্রমায় এ সম্পর্ক আজ অত্যন্ত সুদৃঢ়। ভবিষ্যতে এ সম্পর্ক আরও জোরদার হবে।’

এ সময় স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মোহাম্মাদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহসহ স্থানীয় সরকার বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ১২ জুন

Back to top button