ইউরোপ

নিজেকে পিটার দ্য গ্রেটের সঙ্গে তুলনা করলেন পুতিন

মস্কো, ১০ জুন – রাশিয়ায় পিটার দ্য গ্রেটের ৩৫০ বছরের জন্মদিন উদযাপিত হলো বৃহস্পতিবার (৯ জুন)। এই সম্রাট একসময় বিপুল পরিমাণ অঞ্চল দখল করেছিলেন। পিটারের গুণগান করতে গিয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, তিনিও পিটারের মতোই দেশের জমি পুনর্দখলের কাজে নেমেছেন।

পিটার দ্য গ্রেট পরবর্তীকালে নিজের নাম সেন্ট পিটার্সবার্গ রাখেন। তার নামেই নামকরণ হয়েছে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের জন্মস্থান সেন্ট পিটার্সবার্গ।

ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের স্পষ্টতা উল্লেখ করে পুতিন বলেন, ‘আমাদের দায়িত্ব সেসব অঞ্চলকে ফিরিয়ে নেওয়া এবং শক্তিশালী করা।’

তার এই বিতর্কিত মন্তব্য নিয়ে সরব হয়েছে ইউক্রেন। ইউক্রেন বলছে, এ কথা বলে পুতিন দখল করা অঞ্চলকে বৈধতা দিতে চাইছেন। কিন্তু বিশ্ব কূটনীতি তা মানতে পারে না। কূটনীতিকদের ঠিক করে নিতে হবে, কোথায় তারা সীমান্ত চিহ্নিত করবেন। রাশিয়ার দাবি এভাবে মুখ বুজে মেনে নেওয়া ঠিক হবে না, বলছেন তারা।

রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের নির্দেশের পর স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ভোরে স্থল, আকাশ ও জলপথে ইউক্রেনে হামলা শুরু করেন রাশিয়ার সেনারা। উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব দিক থেকে, এমনকি বেলারুশ থেকেও হামলা চালানো শুরু হয়। ধীরে ধীরে রাজধানী কিয়েভের দিকে অগ্রসর হয় রুশ সেনারা।

পূর্ব ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর নির্দেশের আগে রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রিত দুটি অঞ্চলকে স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে পুতিন ইউক্রেনকে রাশিয়ার ইতিহাসের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, পূর্ব ইউক্রেন এক সময় রাশিয়ার ভূমি ছিল। পুতিনের এ ঘোষণার পর শুরু হয় ইউক্রেন আগ্রাসন।

সূত্র : জাগো নিউজ
এম এস, ১০ জুন

Back to top button