ইউরোপ

শরতের মধ্যে ইউক্রেনে সাড়ে ৭ কোটি টন খাদ্যশস্য জমা হবে

কিয়েভ, ০৬ জুন – ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, শরতের মধ্যে (সেপ্টেম্বর-নভেম্বর) তার দেশে ৭ কোটি ৫০ লাখ টন খাদ্যশস্য জমা হবে। বিশ্বে নিরাপদে খাদ্য রপ্তানিতে মিত্র দেশগুলোর কাছে জাহাজ বিধ্বংসী অস্ত্র চেয়েছেন তিনি।

কিয়েভে এক ব্রিফিংয়ে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বলেন, তৃতীয় কোনো দেশ ইউক্রেন থেকে খাদ্যশস্য বের করবে এমন ধারণা (আইডিয়া) তুরস্ক ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে আলোচনা করেছি। এ ক্ষেত্রে গ্যারান্টি পেলে সেটা ইউক্রেনের জন্য অস্ত্রের মতো কাজ করবে।

প্রসঙ্গত, ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া ইউক্রেনে আক্রমণ করে। এর পর থেকে কিয়েভ কোনো দেশে খাদ্যশস্য রপ্তানি করতে পারেনি। কারণ, রুশ সেনারা কৃষ্ণসাগর অবরোধ করে রেখেছে।
রাশিয়া ও ইউক্রেন বিশ্বের গমের ৪০ শতাংশ চাহিদা পূরণ করে থাকে। যুদ্ধ শুরুর পর উভয় দেশ খাদশস্য রপ্তানি বন্ধ রাখায় বিশ্বে খাদ্য সংকট তৈরি হয়েছে।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সম্প্রতি বলেছেন, পশ্চিমারা যদি তার দেশের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়, তাহলে বিশ্বব্যাপী খাদ্য সংকট এড়াতে মস্কো উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে প্রস্তুত।

আল–জাজিরার এক খবরে বলা হয়, বিশ্বের ক্রমবর্ধমান খাদ্য সংকটের জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর ওপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করছে ক্রেমলিন। ইউক্রেন–রাশিয়া সংঘাতের কারণে লাখ লাখ টন শস্য ও অন্যান্য কৃষিপণ্য কিয়েভ আন্তর্জাতিক বাজারে পাঠাতে পারছে না।

সূত্র: বিডিপ্রতিদিন
এম ইউ/০৬ জুন ২০২২

Back to top button