উত্তর আমেরিকা

যুক্তরাষ্ট্রের মাথাব্যথা গান লবি

ওয়াশিংটন, ০৩ জুন – যুক্তরাষ্ট্রে সাম্প্রতিক সময়ে বন্দুক হামলার সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে। গত দুই সপ্তাহে বন্দুক হামলায় ৩৭ জন নিহত হয়েছে। সবশেষ গত বুধবার দেশটির ওকলাহোমা অঙ্গরাজ্যের টিউলসা শহরের একটি হাসপাতালে বন্দুকধারীর হামলায় হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। গত সপ্তাহেও টেক্সাসের একটি প্রাথমিক স্কুলে নির্বিচার গুলিবর্ষণে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ ২১ জন নিহত হয়। এসব ঘটনার পর ফের আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী ‘গান লবি’র বিষয়টি। ডেমোক্র্যাট দলের নেতারা অস্ত্র আইন সংস্কার আটকে দেওয়ার জন্য রিপাবলিকান আইনপ্রণেতাদের দায়ী করেছেন।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ক্ষমতায় থাকাকালে স্যান্ডি হুক এলিমেন্টারি স্কুলে বন্দুকধারীর গুলিতে ২০ শিশু ও ৬ প্রাপ্তবয়স্ক নিহত হয়। টেক্সাসের ঘটনার পর ওবামা বলেছেন ভয়ে নয়, একটি গান লবি ও এমন দুঃখজনক ঘটনা এড়ানোর কাজে আগ্রহ না থাকা একটি রাজনৈতিক দল যুক্তরাষ্ট্রকে প্যারালাইজড করেছে।

হাউজ ইন্টেলিজেন্স কমিটির ডেমোক্র্যাট চেয়ারম্যান অ্যাডাম শিফ টুইটারে লিখেছেন, শিশুরা মরছে। এই বিষয়ে আমরা কিছু একটা করতে পারি। কিন্তু রিপাবলিকানরা গান লবির বিরুদ্ধে দাঁড়াতে রাজি নয়। গান লবির ক্ষেত্রে অস্ত্র ব্যবসায়ীরা বা অস্ত্র আইন সংস্কারের পক্ষের সংস্থাগুলো আইনপ্রণেতাদের সরাসরি তহবিল প্রদান, নির্বাচিত কর্মকর্তাদের স্বতন্ত্রভাবে সহযোগিতার মাধ্যমে নিজেদের পক্ষে জনমত আনতে নিতে প্রচারণা চালায়। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনী অর্থ আইন এড়াতে প্রায়ই এমন লবিং খুব সতর্কতার সঙ্গে বাস্তবায়ন করা হয়।

গান লবির সংস্থা দেশজুড়ে রাজনৈতিক ও প্রার্থীদের সমর্থনে লাখো ডলার ব্যয় করে। যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতির ব্যয় নিয়ে কাজ করা অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ওপেনসিক্রেটসের মতে, ১৯৯৮ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বন্দুকপন্থি গোষ্ঠীগুলো লবিংয়ের পেছনে ব্যয় করেছে ১৭ কোটি ১৯ লাখ। আইন প্রণয়ন প্রভাবিত করতে এই অর্থ ব্যয় করা হয়েছে। ওপেনসিক্রেটসের মতে, ২০১০ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত তথাকথিত বাইরের খরচ হিসেবে ব্যয় করেছে সাড়ে ১৫ কোটি ডলার। এগুলোর মধ্যে সেই ব্যয় রয়েছে, যা সরাসরি প্রার্থীদের সঙ্গে সমন্বয় করে ব্যয় করা হয়নি।

প্রার্থীদের সরাসরি তহবিল প্রদানের সীমা থাকলেও বাইরের খরচে কোনো সীমারেখা নেই। ২০১৬ সালে এনআরএ ট্রাম্প ও ৬ রিপাবলিকান সিনেট প্রার্থীর সমর্থনে ব্যয় করেছে ৫০ মিলিয়ন ডলার।

১৯৯০ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বন্দুকপন্থি সংস্থাগুলো নির্বাচনী প্রচারণায় সরাসরি ৫ কোটি ৪৪ লাখ ডলার তহবিল প্রদান করেছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই অর্থের বেশিরভাগ গেছে রিপাবলিকানদের পকেটে।

২০২২ সাল পর্যন্ত এমন তহবিল পাওয়াদের মধ্যে শীর্ষে রয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসের রিপাবলিকান সিনেটর র‌্যান্ড পল ও জন। এছাড়া প্রতিনিধি পরিষদের মাইনরিটি হুইপ স্টিভ স্ক্যালিজ, টেক্সাসের সিনেটর ক্রুজ, সিনেটর মার্থা ম্যাকস্যালি, ডেভিড পারডিউ ও কেলি লোয়েফলার সরাসরি বন্দুকপন্থিদের কাছ থেকে অর্থ পেয়েছেন।

সূত্র: দেশ রূপান্তর
এম ইউ/০৩ জুন ২০২২

Back to top button