এশিয়া

মিয়ানমারে ১০ লাখের বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত

নেপিডো, ০৩ জুন – মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে সহিংসতার জেরে বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা বেড়েছে বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। এতে প্রথমবারের মতো দেশটিতে বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়েছে।

সংস্থাটি সতর্ক করে জানিয়েছে, বর্ষা ঘনিয়ে আসার পাশাপাশি যুদ্ধের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারে।

গত বছর মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে দেশটির ক্ষমতাসীন নেত্রী অং সান সু চির এনএলডি সরকারকে উৎখাত করে সেনাবাহিনী। পরে সু চিসহ তার দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদেরও একে একে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ছাড়া সামরিক অভ্যুত্থানে বাস্তুহারা হয়েছেন বহু মানুষ। সম্প্রতি জাতিসংঘের কো-অর্ডিনেশন অব হিউম্যানিটেরিয়ান অ্যাফেয়ার্স- ‘ইউএনওসিএইচএ’র প্রতিবেদনে জানানো হয়, মিয়ানমারের সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে সহিংসতার জেরে বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, সামিরিক অভ্যুত্থানের পর দেশটির সাত লাখের বেশি মানুষকে ঘরবাড়ি ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে। আর জান্তা সরকারের চালানো সহিংসতায় বাস্তুচ্যুত হয়েছেন আরও ৩ লাখের বেশি মানুষ। এর মধ্যে রয়েছে থাইল্যান্ড ও চীন সীমান্তে বিদ্রোহী দলগুলোর সঙ্গে দীর্ঘ লড়াইয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এবং ২০১৭ সালে ঘরবাড়ি ছেড়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গারা।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ০৩ জুন

Back to top button