জানা-অজানা

বিশ্বজুড়ে বেড়েছে শনাক্ত, মৃত্যু ১৩ শতাধিক

ঢাকা, ০২ জুন – বিগত একদিনে চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কমলেও বেড়েছে আগের দিনের চেয়ে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা। এই সময়ে সারা বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ১৩ শতাধিক আর করোনায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে সাড়ে ৫ লাখ।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, গেলো ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৩৩৬ জনের, আগের দিনের তুলনায় যা কমেছে ৩৯ জন। এই নিয়ে বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৩ লাখ ১৫ হাজার ৫২৩ জনে।

এদিকে গেলো ২৪ ঘণ্টায় সারাবিশ্বে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৫৪ হাজার ৭৪৬ জন। আগের দিনের তুলনায় যা বেড়েছে প্রায় ২৯ হাজার। এই নিয়ে করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৩ কোটি ৩৩ লাখ ৭৭ হাজার ৪৭ জনে।

গত একদিনে বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে উত্তর কোরিয়ায়। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় আবারও শীর্ষে উঠে এসেছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে তাইওয়ান, ব্রাজিল, যুক্তরাজ্য, জার্মানি ও রাশিয়া।

গেলো ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে সবচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণ হয়েছে উত্তর কোরিয়ায়। এই সময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯৩ হাজার ১৯০ জন। এই নিয়ে করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত পূর্ব এশিয়ার এই দেশটিতে ৩৭ লাখ ৩৮ হাজার ৮১০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৭০ জন মারা গেছেন।

গত দিনে সারাবিশ্বের মধ্যে করোনায় দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে যুক্তরাষ্ট্র। এই সময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮৭ হাজার ৫৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩২৩ জনের। করোনা মহামারিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৮ কোটি ৬১ লাখ ২৮ হাজার ৩০২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১০ লাখ ৩২ হাজার ৩৫৯ জন মারা গেছেন।

বিগত ২৪ ঘণ্টায় রাশিয়ায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮৩ জন এবং নতুন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৪ হাজার ১৫১ জন। করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৮৩ লাখ ৩৫ হাজার ৫১৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৭৯ হাজার ২০০ জনের।

গেলো দিনে ফ্রান্সে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২৬ হাজার ১৪৪ জন এবং মারা গেছেন ৫৮ জন। করোনার শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৯৫ লাখ ৪৫ হাজার ৩৯৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৪৮ হাজার ৩৮৫ জন মারা গেছেন।

ইউরোপের আরেক দেশ জার্মানিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫২ হাজার ২৬১ জন এবং মারা গেছেন ৮৯ জন। করোনার শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৬৪ লাখ ২২ হাজার ১৩৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৩৯ হাজার ৪৯০ জন মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ইতালিতে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ হাজার ৩৯১ জন এবং মারা গেছেন ৫৯ জন। এই নিয়ে করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত ইউরোপের এই দেশটিতে ১ কোটি ৭৪ লাখ ৪০ হাজার ২৩২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৬৬ হাজার ৭৫৬ জন।

করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। গত একদিনে দেশটিতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১২১ জন এবং নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৪০ হাজার ৯৭৯ জন। এই নিয়ে করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩ কোটি ১০ লাখ ৬০ হাজার ১৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৬৬ হাজার ৮৪৮ জনের।

গেলো ২৪৫ ঘণ্টায় দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৭৭৭ জন এবং মারা গেছেন ২১ জন। করোনার শুরু থেকে পূর্ব এশিয়ার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৮১ লাখ ১৯ হাজার ৪১৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং ২৪ হাজার ১৯৭ জন মারা গেছেন।

বিশ্বজুড়ে করোনা আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী ভারত। তবে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটি আছে তিন নাম্বারে। গত একদিনে দেশটিতে নতুন করে করোনা সংক্রমণ হয়েছেন ৪ হাজার ৩৭২ জনের। করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ৩১ লাখ ৬৫ হাজার ৭৩৮ জন এবং মারা গেছেন ৫ লাখ ২৪ হাজার ৬৩৬ জন।

গেলো ২৪ ঘণ্টায় তাইওয়ানে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮৮ হাজার ২৯৩ জন এবং মারা গেছেন ১২২ জন। যুক্তরাজ্যে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৩০৬ জন এবং মারা গেছেন ৯০ জন। অস্ট্রেলিয়ায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫ হাজার ৬৯৯ জন এবং মারা গেছেন ৩৭ জন। জাপানে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৯৮২ জন এবং মারা গেছেন ৩৬ জন। দক্ষিণ আফ্রিকায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬৪৭ জন এবং মারা গেছেন ২৯ জন।

এম এস, ০২ জুন

Back to top button