ক্রিকেট

সাকিব অন্য ফরম্যাটের চেয়ে টেস্ট বেশি উপভোগ করে: সুজন

ঢাকা, ০১ জুন – সাম্প্রতিক সময়ে টানা রানখরায় ভোগা মুমিনুল হক নিজের ব্যাটিং ফর্ম ফিরে পেতে নেতৃত্বের চাপ মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলতে চাচ্ছেন। আর তাই বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে আলাপের পর অধিনায়কত্ব না করার ঘোষণা দিয়েছেন।

মঙ্গলবার নেতৃত্ব ছাড়ার বিষয়ে টেস্ট দলের অধিনায়ক বলেন, ‘পাপন ভাই থাকতে বলেছেন, কিন্তু আমি আসলে আর এটা চাচ্ছি না। আমি ব্যক্তিগতভাবে আসলেই চাচ্ছি না। আমি চাচ্ছি ব্যাটিংয়ে মনোযোগ দিতে। সেটাই আমার জন্য ভালো। যখন আপনি ভালো খেলবেন, দল খারাপ করলেও অনুপ্রেরণা দিতে পারবেন। কিন্তু আমি ভালো খেলতে পারছি না, দলও ভালো করছে না। এই সময়ে অধিনায়কত্ব করা খুবই কঠিন।’

ওপরের কথাতেই পরিষ্কার মুমিনুল আর অধিনায়ক থাকতে চান না। স্বাভাবিকভাবেই চলে আসছে নতুন অধিনায়ক প্রসঙ্গ। চারিদিকে এখন একটাই কৌতুহলি প্রশ্ন- কে হবেন বাংলাদেশের পরবর্তী টেস্ট অধিনায়ক? সেখানে প্রায় সবার মুখেই সবার আগে উচ্চারিত হচ্ছে একটি নাম-সাকিব আল হাসান। সঙ্গে তামিম ইকবালের কথাও বলছেন কেউ কেউ। আবার মুশফিকুর রহিম এমনকি লিটন দাসের নামও আসছে।

মুমিনুল যেহেতু অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা নিজ থেকে জানিয়েছেন, তাই তার বিকল্প খোঁজা ছাড়া উপায় নেই। ভেতরের খবর, আগামীকাল ২ জুন দুপুরে বিসিবির পরিচালক পর্ষদের সভাতেই নতুন টেস্ট অধিনায়ক মনোনয়নের কাজ সম্পন্ন হবে। বোর্ড কর্তাদের সঙ্গে কথা বলে বোঝা গেছে, তারা সাকিবের কথাই ভাবছেন। বোর্ডের প্রভাবশালী পরিচালক ও ক্রিকেট দলের ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন সাকিব ইস্যুতে আজ কথা বলেছেন।

কথায় পরিষ্কার, সুজনও চান সাকিবই অধিনায়ক হন। শ্রুতি আছে, সাকিব টেস্ট খেলতে চান না। গত কয়েক বছরে টেস্ট দলে সাকিব অনিয়মিতই। এবং সেটা সাকিবের ইচ্ছেতে। টিম ম্যানেজম্যান্টের অটো চয়েজ থাকলেও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার নানা কারণে নানা সময় ছুটি কাটিয়েছেন টেস্ট সিরিজ চলার সময়।

সাকিব কি আসলেই টেস্টের প্রতি আগ্রহী নন? সুজন এমনটা মানতে নারাজ। তিনি বরং বললেন, ‘সাকিব সবসময় টেস্ট খেলতে চায়। আমি জানি না কেন কথাটা বারবার আসে, সাকিব টেস্ট খেলতে চায় না। সাকিবের সঙ্গে যতবার কথা বলেছি, সে বলে আমি অন্য ফরম্যাটের থেকে টেস্ট বেশি উপভোগ করি। আমি সবসময় বেশি টেস্ট খেলতে চাই।’

সাকিব যদি অধিনায়ক হন, তবে তার মানসিকতায়ও পরিবর্তন আসবে, মনে করেন সুজন। জাতীয় দলের টিম ডিরেক্টরের ভাষায়, ‘যদি সাকিব খেলতে চায়, সাকিবকে বোর্ড অধিনায়কত্ব দিতে চায়, আমি মনে করি তাতে সাকিবেরও একটা পরিবর্তন আসতে পারে। আমি বলছি না সাকিবই টেস্ট ক্যাপ্টেন হবে। তামিমও আছে। মাহমুদউল্লাহ যেহেতু ছেড়ে দিয়েছে, মুশফিকও আছে। তবে সে নেবে কী না, সেটা বড় ব্যাপার। কে হবে আমি জানি না।’

সূত্র : জাগো নিউজ
এম এস, ০১ জুন

Back to top button