জাতীয়

ডিসেম্বরের মধ্যেই আ.লীগের জাতীয় সম্মেলন

ঢাকা, ০১ জুন – চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন করা হবে বলে জানিয়েছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার গণভবনে দলের উপদেষ্টাদের সঙ্গে বৈঠকের সূচনা বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি এ কথা জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করে ভোটে জিতে সরকার গঠনের পর আমরা তা ভুলে যাই না। প্রতি বছর বাজেট ঘোষণার সময়ে সেই ইশতেহার হাতে নিয়ে কতটুকু অর্জন করতে পারলাম, কতটুকু আমাদের সামনে করতে হবে, সেগুলো বিবেচনা করে সেভাবেই বাজেট করে থাকি। এবারও তাই করছি।

তিনি বলেন, ‘৭৫-র ১৫ আগস্টের পর বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থা দুঃখজনক ছিল। কারণ ক্ষমতা তো জনগণের হাতে ছিল না। ক্ষমতায় চলে গিয়েছিল সেই মিলিটারি ডিকটেটরদের হাতে। তারা উর্দি পরে ক্ষমতা দখল করত। যার ফলে দেশের উন্নয়ন না হয়ে তারা তাদের উন্নয়ন করেছে। দেশে ১৯/২০ টা ক্যু হয় তখন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অস্ত্রের ঝনঝনানি ছিল, সেশন জট ছিল। সেই অবস্থা থেকে তুলে এনে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। তৃণমূল পর্যায় থেকে উন্নয়ন করে যাচ্ছি। আমরা তৃণমূল থেকে উন্নয়ন করেছি। আজ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি।

পদ্মা সেতুর প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পদ্মাসেতু একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। সততা ছিল বলেই এই চ্যালেঞ্জ নিতে পেরেছি। নিজেদের অর্থে সেই সেতু করেছি। ২৫ জুন উদ্বোধন করব ইনশাল্লাহ।

পদ্মা সেতু নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ মিথ্যা ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, কানাডার কোর্ট রায়ে বলেছে সব অভিযোগ ভুয়া ও মিথ্যা। ড. ইউনুস এটা করেছে শুধু গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি পদের জন্য। ৭১ বছর বয়স পর্যন্ত ড. ইউনুস বেআইনিভাবে গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি থেকেছেস। এ নিয়ে মামলা করে তিনি হেরে যান। বিশ্বব্যাংক তার কথায় ফান্ড বন্ধ করে দেয়। পরে আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু করি। দেশের ৯০ ভাগ উন্নয়ন নিজস্ব অর্থায়নে করেছি। বাংলাদেশ আজ বদলে গেছে।

এদিন বিকেল ৪টা ১৫ মিনিটে এ বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চারনেতা, ১৫ আগস্টের শহীদ এবং প্রয়াত উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। তাদের সবার আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।

দলীয় সূত্র বলছে, বৈঠকে আগামী জাতীয় সম্মেলন ও সংসদ নির্বাচন এবং সমসাময়িক নানা ইস্যুতে উপদেষ্টাদের থেকে পরামর্শ নেবেন শেখ হাসিনা। পাশাপাশি দল ও সরকার পরিচালনায় নানা বিষয়ে সহযোগিতার জন্য নির্দেশনাও দেবেন তাদের।

এর আগে সোমবার দলের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ বৈঠকের আহ্বানের কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়, ১ জুন বিকেল ৪টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত হবে।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হয়েছেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম। তিনি এ বৈঠকে নতুন সদস্য। এর আগে তিনি পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) থেকে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। শামসুল আলমকে নিয়ে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪২ জনে।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ০১ জুন

Back to top button