দক্ষিণ এশিয়া

ভারতের আরেক মসজিদে পূজার্চনার আবেদন

 

নয়াদিল্লি, ০১ জুন – গত বছরের আগস্ট মাসে পাঁচ জন হিন্দু ধর্মাবলম্বী নারী ভারতের জ্ঞানবাপীর এক মসজিদের ভেতরের পশ্চিমের দেওয়ালে দেবদেবীর মূর্তির অস্তিত্বের দাবি করে তা পূজার্চনার অনুমতি চেয়েছিলেন বারাণসী আদালতে। তা নিয়ে মামলার শুনানি চলছে। এর মধ্যেই কাশীর এক মসজিদে পূজার্চনার আবেদন করা হয়েছে আদালতে। আগামী শনিবার ৪ জুন সেই মামলার শুনানি।

সংবাদ প্রতিদিনের খবরে বলা হয়, অনেকদিন থেকেই ভারতের মথুরায় ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মভূমিতে নির্মিত শাহী ইদগাহ মসজিদ নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। সম্প্রতি জ্ঞানবাপী মসজিদের ভেতরে ‘শিবলিঙ্গ’ থাকার দাবি ঘিরেও তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

এরই মধ্যে এবার নতুন সংযোজন কাশীর পঞ্চগঙ্গা ঘাটের কাছেই অবস্থিত মসজিদ। আবেদনকারীদের দাবি, ‘বারাণসী গেজেটার’ নামের ইতিহাস বইয়ে উল্লেখ রয়েছে পঞ্চগঙ্গার তীরে অবস্থিত বিন্দুমাধব মন্দিরের কথা। সেই মন্দিরের আরাধ্য দেবতা ছিল বিষ্ণু। কিন্তু পরবর্তী সময়ে আওরঙ্গজেব ওই মন্দির ধ্বংস করে দেন। সেখানে তৈরি হয় মসজিদ।

আবেদনকারীদের আইনজীবী রাজা আনন্দ জ্যোতি সিং জানিয়েছেন, পিটিশনে সেই মন্দির পুনর্নির্মাণের দাবি জানানো হয়েছে। উল্লেখ্য, আগামী শনিবার জ্ঞানবাপী মসজিদের মামলার শুনানির দিনই এই মামলারও শুনানি রয়েছে।

২০০২ সালে প্রথমবার আলোচনায় উঠে আসে ‘বেণীমাধব কা ধারাহারা’র নাম। সেই সময় পঞ্চগঙ্গা ঘাটের কাছে বসবাসকারী কয়েকজন তৈরি করেন ‘বেণীমাধব কা ধারাহারা বাঁচাও সমিতি’। উদ্দেশ্য ছিল, ওখানে নির্মিত সৌধের রক্ষা। তার দাবি করেন, সেই সৌধের মধ্যেই নাকি ছিল বিন্দুমাধব মন্দির।

১৯৯৭ ও ২০১৪ সালে যথাক্রমে স্বাধীনতা দিবস ও প্রজাতন্ত্র দিবসে পতাকা উত্তোলন করতে চেয়েছিলেন দক্ষিণপন্থীরা। সেই সময় পুলিশ তাদের আটকে দেয়। সেই বিতর্কই নতুন মোড় নিলো এবার।

এদিকে জ্ঞানবাপী মসজিদের চত্বরে ভিডিও সার্ভের সময় তোলা ভিডিও ও ছবি ফাঁস হয়ে যাওয়ার পরে বিতর্ক শুরু হয়েছে। হিন্দুপক্ষ অস্বীকার করেছে সার্ভের ভিডিও, ছবি ও রিপোর্ট ফাঁস করার অভিযোগ। যদিও মুসলিম পক্ষের দাবি, ওই ভিডিও ও ছবি ফাঁস করেছেন হিন্দুরাই।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/০১ জুন ২০২২

Back to top button