পাবনা

এবার টিটিইকে গুলি করে খুলি ওড়ানোর হুমকি দিলেন এএসআই

পাবনা, ৩১ মে – বিনা টিকিটের যাত্রীদের জরিমানা করার সময় চলন্ত ট্রেনে বচসার জের ধরে কর্তব্যরত টিটিইকে গুলি করে মাথার খুলি ওড়ানোর হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রেলওয়ে পুলিশের এক সহকারী উপপরিদর্শকের (এএসআই) বিরুদ্ধে।

হুমকি পাওয়া রেলের ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরিদর্শকের (টিটিই) নাম আব্দুল আলীম বিশ্বাস মিঠু। আর অভিযুক্ত এএসআই’র নাম রুবেল মিয়া। তারা আজ মঙ্গলবার খুলনা থেকে ঈশ্বরদী হয়ে ঢাকাগামী আন্তঃনগর চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনে কর্তব্যরত ছিলেন। ওই ট্রেনেই হুমকির এ ঘটনা ঘটে। কর্তব্যরত ট্রেন পরিচালক (গার্ড) এএসএম ইকবাল মাহবুব ঘটনাটি রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে তারবার্তার মাধ্যমে অবহিত করেছেন।

টিটিই, গার্ড, পুলিশ ও রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঈশ্বরদী জংশন রেলওয়ে স্টেশন থেকে চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ছেড়ে যায়। উল্লাপাড়া স্টেশনে পৌঁছার সময় ওই ট্রেনে কর্তব্যরত টিটিই আব্দুল আলীম বিশ্বাস মিঠু চেক করে বিনা টিকিটের যাত্রীদের জরিমানাসহ টিকিট করিয়ে দিচ্ছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন ট্রেন পরিচালক ইকবাল মাহবুব। এ সময় রেলওয়ে পুলিশের একজন কনস্টেবল বলেন, ‘আপনারা আমাদের এদিকে টিকিট চেকিং করতে কেন এসেছেন?’ এ প্রশ্নে ইকবাল ওই পুলিশ সদস্যকে সংযত হয়ে কথা বলতে আহ্বান জানান। এ নিয়ে বচসা শুরু হলে এগিয়ে আসেন ট্রেনে জিআরপি পুলিশের ইনচার্জ (টিজিই) সহকারী উপপরিদর্শক মো. রুবেল মিয়া।

টিটিই মিঠু অভিযোগ করে বলেন, ‘পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে আমরা বিনা টিকিটের যাত্রীদের জরিমানাসহ টিকিট করাতে থাকি। এ সময় একপর্যায়ে এএসআই রুবেল মিয়া আমাকে গুলি করে মাথার খুলি উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।’

ট্রেন পরিচালক ইকবাল মাহবুব বলেন, ‘এ সময় ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করে এক পর্যায়ে হ্যান্ডকাপ বের করেন এএসআই রুবেল মিয়া। তিনি টিটিই মিঠুকে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে আটক করারও হুমকি দেন।’

তিনি জানান, উল্লাপাড়া স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পর জামতৈল স্টেশন পর্যন্ত এসব ঘটনা চলতে থাকে। ঘটনার আকস্মিকতায় গার্ড, টিটিই, অ্যাটেনডেন্টসহ ট্রেনে উপস্থিত যাত্রীরাও হতবাক হয়ে পড়েন।

এএসআই রুবেল মিয়া এ বিষয়ে বলেন, ‘ট্রেনে টিকিট চেকিং করার সময় কনস্টেবল ফারুক ট্রেনের পরিচালক ইকবাল মাহবুবকে বলেন, ওই পাশে বিনা টিকিটের যাত্রী রেখে এদিকে কেন এসেছেন? এ নিয়ে তর্কাতর্কির সময় টিটিই মিঠু এসে আমাকে গালি দিয়ে বলেন, পুলিশ টাকা পায়নি বলে এরকম আচরণ করছে। আমি এর প্রেক্ষিতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে আটকের কথা বলেছি। এর বাইরে আমাদের মধ্যে আর কিছু হয়নি।’

ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোপাল কুমার দাস বলেন, ‘ট্রেনের মধ্যে পুলিশ ও টিটিই-গার্ড তর্ক-বিতর্ক এবং একে অপরের সঙ্গে গালাগালিতে লিপ্ত হয়েছে বলে শুনেছি। তারা ডিউটি শেষ করে ঈশ্বরদীতে না ফেরা পর্যন্ত বিস্তারিত বলতে পারছি না।’

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) মো. শাহীদুল ইসলাম এ বিষয়ে বলেন, ‘আমাকে বিষয়টি মৌখিকভাবে টিটিই ও গার্ড জানিয়েছেন। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর এ ঘটনা তদন্ত করা হবে।’

সূত্র : সমকাল
এম এস, ৩১ মে

Back to top button