ফুটবল

ইউরোপিয়ান দলের বিপক্ষে মেসি কেমন পারফর্মার?

প্যারিস সেন্ট জার্মেইতে ভুলে যাওয়ার মতো মৌসুম শেষে আবার জাতীয় দলের জার্সিতে নামতে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি। কোপা আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় আর্জেন্টিনাকে নিয়ে ইউরোপ সেরা ইতালির মুখোমুখি হচ্ছেন ফাইনালিসিমায়। বুধবার লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে হবে বহুল প্রতিক্ষীত এই ম্যাচ।

ম্যাচটি হবে ৯০ মিনিটের। কোনো অতিরিক্ত সময় নেই। নির্ধারিত সময়ে যদি স্কোর সমান থাকে, তাহলে সরাসরি পেনাল্টিতে যাবে ম্যাচ। নিজের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ট্রফিতে চোখ রেখে এই ম্যাচটি খেলবেন মেসি। স্পেনের অ্যাথলেটিক বিলবাওর ট্রেনিং গ্রাউন্ডে অনুশীলন করেছে আর্জেন্টিনা, সোমবার তারা পৌঁছায় ইংল্যান্ডে।

ইতালির মুখোমুখি হওয়ার আগে কারও কারও জানার আগ্রহ থাকতে পারে, ইউরোপিয়ান দলের বিপক্ষে মেসির পারফরম্যান্স কেমন?

২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট মেসি আন্তর্জাতিক ফুটবলে পা রাখেন ইউরোপিয়ান দেশকে দিয়েই। হাঙ্গেরির মাঠে অনুষ্ঠিত ওই প্রীতি ম্যাচে ৬৩ মিনিটে বদলি নামার মাত্র দুই মিনিট পরই লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন তিনি। প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার ভিলমোস ভ্যানকার্ক জার্সি টেনে ধরলে তার কনুইয়ের আঘাতে ফাউলের বাঁশি বাজিয়ে মাঠছাড়া করেন রেফারি।

প্রায় ১৭ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে মেসি এখন পর্যন্ত ইউরোপিয়ান দেশের বিপক্ষে ম্যাচ খেলেছেন ২৯ বার। গোল করেছেন ২১টি এবং অ্যাসিস্ট আটটি। জিতেছেন ১০ ম্যাচ, ড্র চারটি ও হার ১৫টিতে।

সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে তিনবার গোল করেছেন মেসি, যার সবগুলো এসেছে একই ম্যাচে। ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে হ্যাটট্রিক করেন তিনি। কোনো ইউরোপিয়ান দেশের বিপক্ষে এটাই তার সবচেয়ে বেশি গোল। ক্রোয়েশিয়া ও স্পেনের বিপক্ষে করেছেন দুটি করে গোল।

মেসির ক্যারিয়ারে প্রতি ১০৩ মিনিটে গোলের দেখা পেয়েছেন, কিন্তু ইউরোপিয়ান দেশের বিপক্ষে সেই সময়টা বেড়ে ১১৭ মিনিট।

মেসির ক্যারিয়ারে আর্জেন্টিনা দুইবার ইতালির মুখোমুখি হলেও এই ফরোয়ার্ড ইনজুরির কারণে দুটো ম্যাচই ছিলেন মাঠের বাইরে। আজ্জুরিদের বিপক্ষে আসন্ন ম্যাচে বল জালে জড়ালে তিনি দশম ভিন্ন ইউরোপিয়ান দেশের বিপক্ষে গোল করবেন।

সুইজারল্যান্ড ছাড়াও ক্রোয়েশিয়া, সার্বিয়া-মন্টেনেগ্রো, ফ্রান্স, স্পেন, পর্তুগাল, জার্মানি, স্লোভেনিয়া, বসনিয়ার বিপক্ষে গোলের দেখা পেয়েছেন মেসি।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ৩১ মে

Back to top button